Share |

আবারও গাড়ির আঘাত, তবে সন্ত্রাসী হামলা নয়

পত্রিকা রিপোর্ট
লন্ডন, ৯ অক্টোবর : লন্ডনের ন্যাচারাল হিস্ট্রি মিউজিয়ামের কাছে একটি গাড়ি হঠাৎ করে পথচারীদের ওপর উঠে যায়। এতে ১১ জন পথচারী আহত হয়েছেন। গত শনিবার দুপুর আড়াইটার দিকে সাউথ কেনসিংটনের কাছে এক্সিবিশন রোডে এ ঘটনা ঘটে। সাম্প্রতিক সময়ে গাড়ি দিয়ে সন্ত্রাসী হামলা চালানোর অভিজ্ঞতার কারণে ওই ঘটনা মাত্রই আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। ধারণা করা হয়, এটিও কোনো সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা। তবে ঘটনার সঙ্গে সন্ত্রাসবাদের সংশ্লিষ্টতা নাকচ করে দিয়েছে পুলিশ। ঘটনার পরপর পুলিশ পুলিশ একজনকে আটক করে। পরদিন তাঁকে আবার জামিনে  ছেড়ে দেয়।  বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়, কালো রঙের সেই টয়োটা গাড়িটি অন্য আরেকটি গাড়ির সঙ্গে ধাক্কা খেয়ে থেমে যায়। পরে ঘটনাস্থল থেকে এক ব্যক্তিকে গ্রেফতার করে পুলিশ। লন্ডন পুলিশের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন যে, এই ঘটনা সন্ত্রাসী হামলা কিনা সে ব্যাপারে তারা নিশ্চিত নন। তবে তারা তদন্ত করছেন। পরে মেট্রো পুলিশের তরফ থেকে একে নিছক দুর্ঘটনা আখ্যা দেওয়া হয়।  
টুইটারে পোস্টকৃত ভিডিও পোস্টে এক ব্যক্তিকে আহত অবস্থায় পড়ে থাকতে দেখা যায়। বিবিসির প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ওই পড়ে থাকা ব্যক্তি গাড়িটির চালক বলে ধারণা করা হচ্ছে। পুলিশের পক্ষ থেকে তাকে গ্রেফতারের কথা জানানো হয়েছে। লন্ডন মেট্রো পুলিশ জানিয়েছে, হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়ার পর আহত ব্যক্তিকে জোরে গাড়ি চালানোর অপরাধে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য নেওয়া হয়েছে।
গাড়ি আঘাত হানার পর ন্যাচরাল হিস্ট্রি মিউজিয়াম এর টুইটারে দেওয়া এক পোস্টে বলা হয়েছে, জাদুঘরের বাইরে একটি গুরুতর ঘটনা ঘটেছে। টুইটারে দেওয়া পোস্টে হামলার একজন প্রত্যক্ষদর্শী লিখেছেন, ‘এইমাত্র লন্ডনে মানুষের ওপর গাড়ি চালিয়ে দেওয়ার সাক্ষী হলাম। আপনার বন্ধুদের কেউ যদি জাতীয় জাদুঘরের কাছাকাছি এলাকায় থাকেন, তাহলে নিরাপত্তার খাতিরে তাদের জানিয়ে দিন।’
প্রত্যক্ষদর্শীদের একজন বিবিসিকে বলেন, ‘আমরা সিগন্যাল বাতির অপেক্ষায় ছিলাম। হঠাৎ প্রচণ্ড জোরে শব্দ শুনতে পাই। আমি ভেবেছিলাম গুলির আওয়াজ, পরে দেখলাম একটি গাড়ি ফুটপাতের উপর দিয়ে চলছে। আমরা দৌড়াতে শুরু করি, আমার বন্ধু মাটিতে লাফ দিয়ে হাত কেটে ফেলেছে।’ তিনি আরও লিখেছেন, ‘সবাই একসময় দৌড়াতে শুরু করলো। এরপর সেখানে দৌড়ে এলেন নিরাপত্তারক্ষীরা। তারা প্রধান প্রবেশ পথ বন্ধ করে দেন। পুলিশ আসার আগে কেউ প্রকৃত অবস্থা বুঝতে পারছিলেন না।’ আরেক প্রত্যক্ষদর্শী বলেন, ‘পরিস্থিতি শান্ত হয়ে যাওয়ার পর আমরা আবার ঘটনাস্থলে ফিরে যাই। সেখানে গিয়ে দেখি পুলিশ এক ভদ্রলোককে মাটিতে চেপে ধরে আছে।’
সম্প্রতি ব্রিটেনে সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা অনেক বেড়ে যাওয়ায় দেশজুড়ে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। চলতি বছরের ৫টি সন্ত্রাসী হামলার ঘটনা ঘটে। এরমধ্যে ৩টি হামলাই ঘটেছে গাড়ি দিয়ে।