Share |

অস্ট্রিয়ায় ক্ষমতায় আসছে উগ্র ডানপন্থীরা

লন্ডন, ১৮ ডিসেম্বর : অস্ট্রিয়ায় ক্ষমতায় আসছে উগ্র ডানপন্থী দল। দেশটির রক্ষণশীল পিপলস পার্টি উগ্র ডানপন্থী ফ্রিডম পার্টির সঙ্গে জোট করেছে। এর ফলে ইউরোপে একমাত্র দেশ হিসেবে অস্ট্রিয়াতেই ক্ষমতাসীন হচ্ছে উগ্র ডানপন্থীরা। গত সেপ্টেম্বরে অস্ট্রিয়ার ক্ষমতাসীন সামাজিক গণতান্ত্রিক দল এসপিও এবং মধ্য রক্ষণশীল অস্ট্রিয়ান পিপলস পার্টির জোট সরকার ভেঙে যায়। আর এ কারণেই এক বছর মেয়াদ থাকতেই নতুন করে অস্ট্রিয়ার সংসদ নির্বাচনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। গত অক্টোবরের মাঝামাঝিতে নির্বাচন হয়। ওই নির্বাচনে পিপলস পার্টি সবচেয়ে বেশি ভোট পায়। কিন্তু তারা সংখ্যাগরিষ্ঠতা পায়নি। ফলে জোট গঠনের প্রয়োজনীয়তা দেখা দেয়। দুই মাস আলোচনার পর উগ্র ডানপন্থীদের সঙ্গে সরকার গঠনের সমঝোতা হয়েছে পিপলস পার্টির।
২০১৩ সালে অস্ট্রিয়ার পররাষ্ট্রমন্ত্রী হয়েই ইতিহাস গড়েছিলেন সেবাস্তিয়ান কুর্জ। ইউরোপের তরুণতম পররাষ্ট্রমন্ত্রী হিসেবে কুর্জ শপথ গ্রহণ করেছিলেন মাত্র ২৭ বছর বয়সে। চার বছর পর সেই উগ্র কুর্জ বিশ্বের কনিষ্ঠতম সরকার প্রধান হওয়ার পথে। পিপলস পার্টির এই নেতাও ডানপন্থী হিসেবে পরিচিত। নির্বাচনী প্রচারণার সময় তিনি ইউরোপে অভিবাসনের বিপক্ষে অবস্থান নেন এবং অভিবাসনের পথ বন্ধ করে দেওয়ার প্রতিশ্রুতি দেন। ২০০০ থেকে ২০০৫ সাল পর্যন্ত এই জোট অস্ট্রিয়ার ক্ষমতায় ছিল।
জোটের রূপরেখা নিয়ে বিস্তারিত এখনো খোলাসা করা হয়নি। তবে ধারণা করা হচ্ছে, ডানপন্থী ফ্রিডম পার্টিকে গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি মন্ত্রণালয় দেওয়া হবে। দেশটির প্রধানমন্ত্রী আলেক্সান্ডার ভ্যান দার জানান, নতুন জোটের দুই শরিকই ইউরোপীয় ইউনিয়ন (ইইউ) এবং ইউরোপীয় মানবাধিকার সনদ অনুসরণের প্রতি ইতিবাচক মনোভাব জানিয়েছে।