Share |

মাহবুব আহসান চৌধুরীর ইন্তেকাল

পত্রিকা রিাপের্ট

লন্ডন, ২৯ জানুয়ারি : বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব লেখক মাহবুব আহসান চৌধুরী বাবর গত ২৪ জানুয়ারি বাংলাদেশ সময় ভোর সাড়ে ৩টায় সিলেট শহরের সুবিদবাজারস্থ লাভলী রোডের নিজ বাসভবনে হার্ট এ্যাটাকে পরলোকগমন করেন। ইন্নালিল্লাহি ইন্না ইলাহি রাজিউন। মৃত্যুকালে তাঁর বয়স হয়েছিল ৬১ বছর। মাহবুব আহসান চৌধুরী বাবরের জন্ম ১৯৫৭, ওসমানিনগর উপজেলার তাজপুর। পৈতৃক নিবাস একই উপজেলার সিকন্দরপুর গ্রামে। দি এইডেড হাইস্কুল এবং সিলেট এম সি কলেজে  পড়াশোনা। সাংস্কৃতিক কর্মকাণ্ডে সক্রিয় মাহবুব আহসান চৌধুরী ১৯৭৫ সালে সিলেট প্রান্তিক কচিকাঁচার মেলা প্রতিষ্ঠাতা এবং সংগঠক ছিলেন। প্রান্তিক কচিকাঁচার মেলার পরিচালকের দায়িত্ব পালন করেন ১৯৮১ পর্যন্ত। ১৯৯০ থেকে ১৯৯৬ পর্যন্ত জেলা শিল্পকলা একাডেমি সিলেট-এর সাধারণ সম্পাদকের দায়িত্ব পালন করা ছাড়াও  সিলেটের সনামখ্যাতমোহাম্মদীপ্রেসের স্বত্ত্বাধিকারী মাহবুব আহসান চৌধুরী সাহিত্যাঙ্গনেও ছিলেন সক্রিয়। তাঁর লেখা দুটি উপন্যাস পাঠকপ্রিয়তা লাভ করে। ২০০৬ থেকে ২০০৮ সম্মিলিত নাট্য পরিষদ সিলেট-এর সভাপতি নাট্য সংগঠন নাট্যায়ন সিলেট-এর সংগঠক এবং সভাপতিও ছিলেন তিনি।

এছাড়া কর্মজীবনে ১৯৯৮ থেকে ২০০০ সাল পর্যন্ত ঢাকার ব্রিটিশ হাইকমিশন  সিলেটের কন্স্যুলার রিপ্রেজেন্টেটিভ ছিলেন।২০০০ সাল থেকে ইমিগ্রেশন এডভাইসরি সার্ভিস-এর বাংলাদেশ শাখার প্রধান ছিলেন মাহবুব আহসান চৌধুরী।

উল্লেখ্য, মাহবুব আহসান চৌধুরীর পিতা লতিফুর রহমান চৌধুরী  তাজপুর মঙ্গলচণ্ডি নিশিকান্ত বহুমুখী উচ্চবিদ্যালয়ের দীর্ঘদিন সনামধন্য  প্রধান শিক্ষক ছিলেন। বিশিষ্ট লেখিকা লাভলী চৌধুরী তাঁর সহোদরা। ন্যাপের সাবেক কেন্দ্রীয় সহসভাপতি এম গনি বাংলাদেশের খ্যাতিমান চলচ্চিত্র প্রয়োজক আলমগীর পিকচার্সের স্বত্তাধিকারী কে এম জাহাঙ্গীর খান তার ভগ্নিপতি। বিশিষ্ট সঙ্গীত শিল্পী জুমা খান তাঁর ভাগ্নি।  মৃত্যুকালে তিনি অসংখ্য বন্ধুবান্ধব গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। স্ত্রী ফারহানা চৌধুরী এবং দু কন্যা কান্তি, কাকন এক পুত্র জিসান-এর জনক মাহবুব আহসান চৌধুরীর বোন দুই ভাইয়ের মধ্যে বড়ভাই কুতুবুল আলম চৌধুরী আলমগীর পিকচার্সের জেনারেল ম্যানেজার কনিষ্ঠ ভ্রাতা  জাহাঙ্গীর ইকবাল চৌধুরী যুক্তরাজ্যে রয়েছেন। 

বিশিষ্ট সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব লেখক মাহবুব আহসান চৌধুরীর মৃত্যুতে দেশে বিদেশে বিশিষ্টজনরা গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। বন্ধুবান্ধবরা মর্মাহত হয়ে সোস্যাল মিডিয়ায় শোক প্রকাশ করে অসংখ্য স্ট্যাটাসও দিয়েছেন।