Share |

মৌলভীবাজারে দু’পক্ষের সংঘর্ষে অর্ধশতাধিক আহত

সিলেট, ২৬ ফেব্রুয়ারি : মৌলভীবাজার সদর উপজেলার খলিলপুর ইউনিয়নের পূর্বলামুয়া গ্রামে পূর্ব বিরোধের জের ধরে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। এই সময় নারীসহ উভয় পক্ষের অন্তত অর্ধশতাধিক আহত হয়েছেন। আহতদের মৌলভীবাজার ২৫০ শয্যা হাসপাতাল ও সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনাটি ঘটেছে গত শনিবার সন্ধ্যায়।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সদর উপজেলার খলিলপপুর ইউনিয়নের পূর্বলামুয়া গ্রামের লেবাস মিয়া, জমসেদ মিয়ার গোষ্ঠী ও একই গ্রামের ফকির বাড়ির লোকজনের মধ্যে দীর্ঘ দিন ধরে স্থানীয় বড়হাওরে যাওয়ার গোপাটে ফিসারী করা নিয়ে বিরোধ চলছিল। এদিকে লেবাস মিয়ার গোষ্ঠীর মুকিত মিয়া ফকিরবাড়ির সাথে যোগ দেয়ায় বিষয়টি গোষ্ঠীর লোকজন সহজভাবে নেয়নি।

গত ২৪ শে ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যার দিকে লেবাস মিয়ার পক্ষের লোকজন ক্ষিপ্ত হয়ে মুকিত মিয়ার বাড়ি ঘেরাও করে হামলা করে। এ ঘটনার প্রতিবাদ করে ফকিরবাড়ির লোকজন। এতে উভয় পক্ষের মধ্যে উত্তেজনা বিরাজ করে। পরে উভয় পক্ষ দেশীয় অস্ত্র নিয়ে সংঘর্ষে লিপ্ত হয়। দফায় দফায় সংঘর্ষের খবর পেয়ে মডেল থানা নিয়ন্ত্রিত শেরপুর ফাঁড়ির পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করতে ব্যর্থ হলে মডেল থানা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গেলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণ করে। এ সময় স্থানীয় খলিলপুর এবং মনুমুখ ইউনিয়নের চেয়ারম্যানসহ এলাকার বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ উভয়পক্ষের সংঘর্ষ থামাতে সহায়তা করেন।

এদিকে কয়েক দফা সংঘর্ষে উভয়পক্ষের আহতরা হলেন, কলেজ ছাত্র জুবের আহমদ, জমশেদ মিয়া, সুফি মিয়া, আকমল মিয়া, এম্বুল মিয়া, নজরুল ইসলাম, রুনা বেগম, শাহজাহান মিয়া, ফজিলত মিয়া, রুজিনা বেগম, রুশনা বেগম, জুলেখা বেগম, আশিক মিয়া, সামছুল হক, রিপন মিয়া, আমির হোসেন, লিয়াকত মিয়া, মিছিল মিয়া, মহসিন মিয়া, রব্বান মিয়া, সুমন মিয়া, দরবেশ মিয়া। অপর আহতদের নাম জানা যায়নি। গুরুতর আহত ১১ জনকে সিলেট এম এ জি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।