Share |

ইসলামিক রিলিফের ‘অনার হার’ ক্যাম্পেইন

লন্ডন, ০৯ এপ্রিল : নারীদের প্রতি সহিংসতা ও বৈষম্য বন্ধে নতুন ক্যাম্পেইন শুরু করেছে যুক্তরাজ্যভিত্তিক আন্তর্জাতিক চ্যারিটি সংগঠন ইসলামিক রিলিফ। বিশ্বের অন্যতম এই চ্যারিটি সংগঠন তাদের ক্যাম্পেইনের নাম দিয়েছে ‘অনার হার’ অর্থ্যাৎ নারীকে সম্মান করুন। গত ৪ এপ্রিল ইস্ট লন্ডন মসজিদের কনভেশন হলে অনুষ্ঠিত  এক সংবাদ সম্মেলনে এই ক্যাম্পেইনের সূচনা করা হয়। ইসলামিক রিলিফের কর্তাব্যক্তিরা সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন। 

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, একটি আন্তর্জাতিক চ্যারিটি সংস্থা হিসেবে ইসলামিক রিলিফ যুক্তরাজ্যে এবং যুক্তরাজ্যের বাইরে যেসব দেশে তাদের কার্যক্রম রয়েছে, সব দেশেই এই ক্যাম্পেইন একযোগে শুরু করেছে। সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন সংগঠনের মিডিয়া রিলেশন্স ম্যানেজার হাসিনা মমতাজ। 

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ডোমেস্টিক ভায়োলেন্স, সেক্সুয়াল ভায়োলেন্স, মানবপাচার, জোরপূর্বক বিয়ে, প্রাপ্ত বয়স্ক হওয়ার আগেই বিয়ে, নারীর যৌনাঙ্গহানী এবং অনার কিলিংয়ের কারণে নারীরা প্রতিনিয়ত নির্যাতনের শিকার। এছাড়া আরও নানাভাবে নারীদের প্রতি অন্যায় আচরণ করা হয়। ধর্মের  দোহাই দিয়ে অনেক সময় নারীদের প্রতি বৈষম্য করা হয়। এসব বিষয়ে সচেতনতা তৈরি করতে কাজ করবে এই ক্যাম্পেইন। সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে  তারা পবিত্র কোরআনের বাণী তুলে ধরে প্রচার চালাবেন। মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেন এই ক্যাম্পেইনে সহযোগী হিসেবে কাজ করবে। 

ইসলামিক রিলিফ ইউকের ডাইরেক্টর ইমমা ম্যাডেন বলেন, ইসলামিক ধর্মীয় নেতাদের পাশাপাশি কমিউনিটির সকলকে এ ক্যাম্পেইনে যুক্ত করার মাধ্যমে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে সচেতনতা গড়ে তোলা হবে। মসজিদগুলোকে এ কাজে যুক্ত করা হবে জানিয়ে তিনি বলেন, মসজিদের বক্তৃতায় ইমামরা এ বিষয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে পারেন। 

মুসলিম স্কলার শেখ ফাহিম বলেন, ইসলামে নারীর প্রতি সহিংসতা ও অন্যায় আচরণের কোনো সুযোগ নেই। এ বিষয়টি সমাজে প্রতিষ্ঠা করতে হবে। ফ্যাশন ব্রান্ড এইচএন্ডএম এর মডেল মারিয়া ইদ্রিসি ‘অনার হার’ ক্যাম্পেইনের অ্যাম্বাসেডর হিসেবে কাজ করছেন।  সংবাদ সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মুসলিম কাউন্সিল অব ব্রিটেনের সেক্রেটারি হারুন খান। লার্জেস্ট ইউটিউব টেগ ব্লগার সাফওয়ান ‘সুফারসাফ’ আহমদিয়া, ব্রিটিশ রাইটার, ব্রডকাস্টার অ্যান্ড একাডেমিক মারিয়াম ফ্রাঙ্ককইচ সিরাহ, ইন্টারন্যাশনাল নাশিদ আর্টিস্ট জেইন বিকাহ এবং ইস্ট লন্ডন মসজিদের ইমাম আবদুল কাইয়ুম প্রমুখ।