Share |

কাউন্সিল নোটিশ প্রত্যাহার : বঙ্গবন্ধুর ভাস্কর্য থাকছে

পত্রিকা রিপোর্ট

লন্ডন, ১৬ এপ্রিল : লন্ডন মহানগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আফসার খান সাদেকের বাসার সামনে স্থাপিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়ার নোটিশ প্রত্যাহার করে নিয়েছে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল ফলে ওই ভাস্কর্য থাকছে এতে বিব্রতকর পরিস্থিতি থেকে রেহাই পেল বাংলাদেশ বিশেষ করে ভাস্কর্যটি সরাতে হলে তা বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের জন্য সবচেয়ে বেশি অস্বস্তির কারণ হতো 

আবসার খান সাদেক পত্রিকাকে জানান, টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের প্ল্যানিং অথোরিটির কাছ থেকে গত শুক্রবার তিনি একটি চিঠি পেয়েছেন ওই চিঠিতে  নোটিশ প্রত্যাহার করে নেয়ার বিষয়টি জানানো হয়  ওই চিঠিতে উল্লেখিত তথ্য অনুযায়ী গত ১১ জানুয়ারি ভাস্কর্যটি সরিয়ে নেয়ার নোটিশ প্রত্যাহারের ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয় কর্তৃপক্ষ 

নিজস্ব অর্থায়নে নিজ ঘরের সামনে আফসার খান সাদেক বঙ্গবন্ধুর এই ভাস্কর্য স্থাপন করেন এরপর থেকে বিভিন্ন সময় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত ব্যক্তিরা এই ভাস্কর্যে শ্রদ্ধা জানাতে যান আবাসিক এলাকায় জনসমাগমের কারণে কয়েকজন বাসিন্দা কাউন্সিলে আপত্তি তুলেন বলে জানা যায় আবাসিক এলাকার প্রচলিত নিয়ম মেনে এই ভাস্কর্য স্থাপন হয়নি বলে অভিযোগ করে এটি সরিয়ে নেয়ার দাবি তোলা হয় এই অভিযোগের ভিত্তিতে গত বছরের ১৫ মার্চ প্ল্যানিং পারমিশন নিয়ে ভাস্কর্যটি স্থাপিত হয়নি জানিয়ে তা সরিয়ে ফেলতে আফসার খান সাদেককে নোটিশ দেয় টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল তবে আবসার খান সাদেক যথাযথ অনুমতি নিয়েই ভাস্কর্যটি স্থাপিত হয়েছে বলে কাউন্সিলের নোটিশকে চ্যালেঞ্জ করেন 

এরমধ্যে ভাস্কর্য সরিয়ে নেয়ার নোটিশের খবরে বড় ধরণের বিব্রতকর পরিস্থিতে পড়ে বর্তমান বাংলাদেশ সরকার ফলে বাংলাদেশ হাইকমিশনও বিষয়ে টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিলের সাথে যোগাযোগ করে বঙ্গবন্ধুর যাতে অসম্মান না হয় সেজন্য একটি সম্মানজনক সিদ্ধান্ত নেয়ার অনুরোধ জানায় 

সর্বশেষ গত বছরের ২৮ নভেম্বর কমিউনিটিজ লোকাল গভার্নমেন্ট অথোরিটির নিয়োগকৃত পরিদর্শক ক্রীস প্রেষ্টন ভাস্কর্যস্থান পরিদর্শন করেন পরিদর্শন শেষে  তথ্য-উপাত্ত যাচাই-বাছাই করে চলতি বছরের ১১ জানুয়ারি নোটিশ প্রত্যাহারের সিদ্ধান্ত দেন 

ভাস্কর্য সরানোর কাউন্সিল নোটিশ বাতিল হওয়ায়  সন্তোষ প্রকাশ করে আফসার খান সাদেক বলেন,  যথাযথ অনুমতি নিয়েই আমি বাঙালি জাতির জনকের এই ভাস্কর্য স্থাপন করার পরও একটি স্বার্থান্বেষী মহল এটি সরিয়ে দিতে শুরু থেকেই ষড়যন্ত্র করছিলো আল্লার অসীম রহমতে তারা সফল হতে পারেনি তিনি বলেন, বহির্বিশ্বে প্রথম স্থাপিত বঙ্গবন্ধুর এই ভাস্কর্য 

আফসার সাদেক বলেন, ‘১৯৬৫ সালে আমেরিকার প্রেসিডেন্ট জন এফ কেনেডি আততায়ীর হাতে নিহত হওয়ার পর তার ভাই রবার্ট কেনেডি লন্ডনের মারলিবর্ন রোডে নিজ বাড়ির সামনে তাঁর ভাস্কর্য স্থাপন করেছিলেন, যেখানে এখনও শ্রদ্ধা জানায় মানুষ আমি বিশ্বাস করি ব্রিটেনে বেড়ে ওঠা আমাদের ভবিষ্যত প্রজন্ম মা?িকালচারাল এই সোসাইটির অনেকেই বাঙালি জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবকেও এভাবে শ্রদ্ধা জানাতে আসবে এই ভাস্কর্যে