Share |

সিরিয়ায় মিসাইলহামলা : তোপের মুখে থেরেসা মে

পত্রিকা রিপোর্ট

লন্ডন, ১৬ এপ্রিল : পার্লামেন্টের অনুমোদন ছাড়াই সিরিয়ায় হামলা করায় তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছেন প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে সিরিয়ায় রাসায়নিক হামলার অভিযোগে গত শুক্রবার রাতে যুক্তরাষ্ট্র ফ্রান্সের সঙ্গে যুক্ত হয়ে এই বিমান হামলা চালায় ব্রিটেন 

ইস্টার হলিডে শেষে গত সোমবার পার্লামেন্টে অধিবেশনে ফিরেন এমপিরা এদিন বিরোধী দলীয় এমপিদের তুমুল সমালোচনার মুখে পড়েন থেরেসা মে জেরেমি করবিন সিরিয়ায় হামলাকে অবৈধ হিসেবে আখ্যায়িত করেন তিনি বলেন, ডোনা? ট্রাম্পের নির্দেশে থেরেসা হামলায় যোগ দিয়েছেন এটা ব্রিটেনের জন্য লজ্জার তিনি ভবিষ্যতে এমন এক তরফা সিদ্ধান্ত নেয়া বন্ধ করতে পার্লামেন্টে হামলার অনুমতি নেয়া বাধ্যতামূলক করে ওয়ার অ্যাক্ট প্রনয়নের দাবি তোলেন অন্যান্য এমপিরাও থেরেসা মের তীব্র সমালোচনা করেন 

জবাবে প্রধানমন্ত্রী বরাবরই বলেন যে, ব্রিটেনের স্বার্থেই সিরিয়ায় হামলার অনুমতি দিয়েছেন তিনি এই হামলাকে নৈতিক এবং বৈধ বলেও দাবি করেন

সিরিয়ার তিনটি স্থান লক্ষ্য করে স্থানীয় সময় গত শুক্রবার বিমান থেকে ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করা হয় এসব স্থানে সিরিয়ার রাসায়নিক গবেষণাগার ছিল রাশিয়া অধিকাংশ ক্ষেপণাস্ত্র প্রতিহতের দাবি করলেও যুক্তরাষ্ট্র তা নাকচ করে দিয়েছে 

সিরিয়া বলছে, হামলার লক্ষ্য ব্যর্থ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্র দাবি করেছে, তিনটি লক্ষ্যেই আঘাত সফল হয়েছে হামলা নিয়ে যুক্তরাজ্য সরকারের কঠোর সমালোচনা করেছে বিরোধী দল এদিকে সিরিয়ার রাসায়নিক অস্ত্র প্রকল্প বন্ধ করতে জাতিসংঘে নতুন প্রস্তাব দিচ্ছে ফ্রান্স জাতিসংঘ মহাসচিব সবাইকে আন্তর্জাতিক আইন মেনে চলার আহবান জানিয়েছেন গত এপ্রিল সিরিয়া সরকার দৌমায় রাসায়নিক হামলা চালিয়েছে এই অভিযোগে দেশ তিনটি হামলা চালালো হামলায় সামরিক-বেসামরিক নাগরিকদের হতাহতের কোনো খবর পাওয়া যায়নি এর আগে একই ধরনের অভিযোগে ইরাকসহ কয়েকটি দেশে হামলা চালিয়েছিল যুক্তরাষ্ট্র তার মিত্ররা পরে সেই অভিযোগ মিথ্যা প্রমাণিত হয়

 

রাসায়নিক স্থাপনা লক্ষ্য করে হামলা

শুক্রবার সিরিয়ার তিনটি স্থান লক্ষ্য করে বিমান থেকে অত্যাধুনিক ক্রুজ ক্ষেপনাস্ত্র হামলা চালায় যুক্তরাষ্ট্র তার দুটি মিত্র দেশ এবার যে হামলা চালালো যুক্তরাষ্ট্র তার সহযোগীরা সেটি এক বছর আগের চেয়েও শক্তিশালী সেবার যুক্তরাষ্ট্র একাই ছিলো, এবার সঙ্গে আছে যুক্তরাজ্য ফ্রান্স আগেরবার হামলার লক্ষ্যবস্তু ছিলো একটি আর এবার অন্তত তিনটি লক্ষ্যবস্তুতে আঘাত হেনেছে মার্কিন ক্ষেপণাস্ত্র প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প হামলার লক্ষ্য সফল হয়েছে বলে দাবি করেছেন তিনি সতর্ক করে বলেছেন, সিরিয় সরকার যদি ফের রাসায়নিক হামলা চালায় তাহলে আমরাও ফের হামলা চালাতে প্রস্তুত তার সফলতার দাবি নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে দেশটিতে যেসব স্থানে হামলা চালানো হয়েছে তার একটি মানচিত্র প্রকাশ করেছে মার্কিন প্রতিরক্ষামন্ত্রণালয় সিরিয়ার দামেস্কের বারজেহ রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টার, হোমসের পশ্চিমে হিম শিনশর রাসায়নিক অস্ত্র মজুদাগার এবং হিম শিনশর রাসায়নিক অস্ত্র বাঙ্কার হামলার লক্ষ্য ছিল এছাড়া কয়েকটি সামরিক ঘাঁটি লক্ষ্য করেও হামলা চালানো হয়

সিরিয়ানরা বলছে, হামলা চালালেও কোনো ক্ষয়ক্ষতি হয়নি তবে স্যাটেলাইট থেকে তোলা ছবিতে ধ্বংসযজ্ঞের প্রমাণ পাওয়া গেছে তিন দেশ মিলে ১০৫টি ক্ষেপনাস্ত্র নিক্ষেপ করে মার্কিন প্রতিরক্ষা দপ্তর পেন্টাগনের মুখপাত্র ডানা বলেছেন, প্রত্যেকটি হামলা সফল হয়েছে হোমস শহরের দুটি স্থাপনার চিত্র স্যাটেলাইটের মাধ্যমে তুলেছে ডিজিটালগ্লোব নামে একটি কোম্পানি হামলার আগে শুক্রবার এবং হামলার পর শনিবারের ছবি প্রকাশ করেছে কোম্পানিটি এতে দেখা যায়, দুটি স্থাপনাই ধ্বংস হয়ে গেছে দামেস্কের বারজেহ রিসার্চ অ্যান্ড ডেভেলপমেন্ট সেন্টারে হামলা সম্পর্কে প্লানেট ডট কম জানিয়েছে, তাদের তোলা ছবিতে গবেষণা কেন্দ্রটি সম্পূর্ণ ধ্বংস হওয়ার প্রমাণ পাওয়া গেছে

 

ক্ষেপনাস্ত্র প্রতিহতের দাবি রাশিয়ার

রাশিয়ার দাবি, অধিকাংশ ক্ষেপনাস্ত্রই ধ্বংস করেছে সিরিয়ার বিমান প্রতিরক্ষা ব্যবস্থা যুক্তরাষ্ট্র জানায়, তারা ১০৫টি ক্ষেপনাস্ত্র ছুঁড়েছে রাশিয়া দাবি করেছে, ১০৩টি ক্ষেপনাস্ত্রের মধ্যে ৭১টিই ধ্বংস করতে সক্ষম হয়েছে সিরিয়ার সেনাবাহিনী রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিন বলেছেন, জাতিসংঘ সনদ এবং আন্তর্জাতিক আইনের তোয়াক্কা না করেই আমেরিকা, ব্রিটেন এবং ফ্রান্স হামলা চালিয়েছে তিনি সতর্ক করে বলেছেন, এর পরিণতি হামলাকারীদের ভোগ করতে হবে রুশ পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্র সিরিয়ায় হামলার পর এখন কৌশলগত সংলাপ চাইছে রাশিয়া নিরাপত্তা পরিষদের জরুরি বৈঠকের আহবান জানিয়েছে এদিকে হামলা চালালেও সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদ অনমনীয় অবস্থানেই আছেন প্রেসিডেন্ট প্রাসাদে ঢোকার একটি ছবি তার টুইটার পেইজে প্রকাশ করা হয়েছে যাতে তাকে ফুরফুরে মেজাজে দেখা যাচ্ছে ইরানের পক্ষ থেকে সতর্ক করে বলা হয়েছে, আঞ্চলিক পরিণতি ভালো হবে না যুক্তরাষ্ট্র এর মিত্রদের অভিযোগের কোনো ভিত্তি নেই তারা যা করেছে, তা আন্তর্জাতিক আইনের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন হামলা আন্তর্জাতিক আইনে বৈধ? কেমব্রিজ বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্তর্জাতিক আইনের অধ্যাপক মার্ক ওয়েলার জানান, হামলার পক্ষে দেশ তিনটি যেসব যুক্তি দেখাচ্ছে, তা প্রধানত জোর দিচ্ছে রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের বিরুদ্ধে আন্তর্জাতিক নিষেধাজ্ঞা বহাল রাখার ওপর তারা বলছে, এই হামলার লক্ষ্য প্রেসিডেন্ট আসাদের রাসায়নিক অস্ত্রের মওজুদ ধ্বংস করা এবং সিরিয়ায় বেসামরিক মানুষের বিরুদ্ধে ভবিষ্যতে এরকম রাসায়নিক হামলা প্রতিরোধ করা ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে বলেছেন, এটা যুক্তরাজ্য করেছে নিজেদের জাতীয় স্বার্থ এবং সেইসঙ্গে আন্তর্জাতিক সমপ্রদায়ের স্বার্থে কিন্তু আইনের দৃষ্টিতে বিচার করলে, এসব যুক্তি কিন্তু বিশ্বকে ফিরিয়ে নিয়ে যায় জাতিসংঘ সনদ গৃহীত হওয়ার পূর্ববর্তী সময়ে

জাতিসংঘ সনদ অনুযায়ী, কোন দেশ আত্মরক্ষার্থে এবং কোন জনগোষ্ঠী, যারা নির্মূল হওয়ার ঝুঁকির মধ্যে আছে, তাদের রক্ষায় সামরিক বল প্রয়োগ করতে পারে আন্তর্জাতিক নিরাপত্তা এবং শৃঙ্খলা বজা রাখার মত বৃহত্তর লক্ষ্য অর্জনেও বল প্রয়োগ করা যেতে পারে কিন্তু সেটা হতে হবে জাতিসংঘ নিরাপত্তা পরিষদের অনুমোদন সাপেক্ষে ১৯৪৫ সালের জাতিসংঘ সনদ পরবর্তী আন্তর্জাতিক আইনে প্রতিশোধ হিসেবে সামরিক বল প্রয়োগ বা কোন দেশকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য সামরিক হামলা চালানো যায় না

মোটামুটি সার্বিক উদ্দেশ্যটা ছিল প্রেসিডেন্ট বাশার আল আসাদকে রাসায়নিক হামলা থেকে বিরত রাখতে একটি বার্তা পাঠানো একইসাথে রুশ ইরানি অবস্থানগুলো থেকে যতটা সম্ভব দূরে থাকা, যাতে করে তাদের সরাসরি এই যুদ্ধে জড়িয়ে ফেলার মাধ্যমে সংঘাত আরো বিস্তৃত না হয়ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এক বিবৃতিতে জানায়, সিরিয়ায় হামলায় যুক্তরাষ্ট্র ফ্রান্সের নেতাদের সমর্থনকে টেরিজা মে স্বাগত জানান রাসায়নিক অস্ত্রের ব্যবহার বন্ধ এবং বৈশ্বিক আইন রক্ষা করাই হামলার উদ্দেশ্য ছাড়া রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহার কখনই যাতে স্বাভাবিক না হয়, সেটাও হামলার মাধ্যমে বোঝানো হবে

লেবার পার্টির পার্লামেন্ট সদস্য (এমপি) জন উডকক জানান, সিরিয়ায় হামলা চালানো ছিল প্রশ্নবিদ্ধ যে কারণে প্রধানমন্ত্রী সোমবার পার্লামেন্টের জন্য অপেক্ষা করেননি তিনি বলেন, ‘আমাদের মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে ওই হামলায় যোগ দিয়েছে যুক্তরাজ্য তবে প্রধানমন্ত্রীকে অবশ্যই ব্যাপারে ব্যাখ্যা দিতে হবে, কেন তিনি আগে থেকে ভোটাভুটি করে সিদ্ধান্ত নেননি

স্কটল্যান্ডের ফার্স্ট মিনিস্টার নিকোলা স্টারজন হামলার নিন্দা জানিয়ে বলেছেন, প্রধানমন্ত্রীর ইচ্ছাতেই হামলা চালানো হয়েছে গ্রিন পার্টির নেতা লুকাস জনাথান বার্টলে বলেন, ‘মে সংসদীয় গণতন্ত্রকে পদদলিত করেছেন

এদিকে, এই বিমান হামলাকে আগ্রাসন বলে মন্তব্য করেছেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন হামলার ঘটনায় জাতিসংঘে জরুরি সভার আহ্বান করবেন বলেও জানান তিনি রাশিয়ার সরকারি টেলিভিশনে স্থানীয় সময় শনিবার এক বিবৃতিতে পুতিন এসব বলেন পুতিন বলেন, গত সপ্তাহে সিরিয়ার দুমা এলাকায় সন্দেহজনক রাসায়নিক হামলার ঘটনাটি সাজানো আর হামলার জন্যই ওই ঘটনাকে কাজে লাগানো হয়েছে

গত সপ্তাহে সিরিয়ার দুমা এলাকায় রাসায়নিক হামলার পর পশ্চিমা বিশ্বের সঙ্গে উত্তেজনার সৃষ্টি হয় তখন থেকেই এই হামলার পরিকল্পনা করা হয় বাশার আল-আসাদের সরকার সব সময়ই দুমায় রাসায়নিক হামলার কথা অস্বীকার করে আসছে

 

পশ্চিমারা ফের হামলা চালালে নৈরাজ্য: পুতিন 

পশ্চিমারা যদি ফের সিরিয়ায় হামলা চালায়, তবে তা বিশ্বে নৈরাজ্য ডেকে আনবে গত রোববার রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন এই হুঁশিয়ারি দেন

গত সোমবার বার্তা সংস্থা রয়টার্সের প্রতিবেদনে এই তথ্য জানানো হয় উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে পুতিন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানির সঙ্গে টেলিফোনে কথা বলেছেন দুই নেতার টেলিফোন আলাপ নিয়ে পরে বিবৃতি দিয়েছে ক্রেমলিন

বিবৃতিতে বলা হয়, পুতিন রুহানি বিষয়ে একমত হয়েছেন যে সিরিয়ায় সাত বছর ধরে চলমান সংঘাতের রাজনৈতিক সমাধান অর্জনের সুযোগ পশ্চিমা হামলায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে

পুতিন বিশেষ করে জোর দিয়ে বলেছেন, জাতিসংঘ সদন লঙ্ঘন করে পশ্চিমাদের এই ধরনের পদক্ষেপ (সিরিয়ায় হামলা) যদি অব্যাহত থাকে, তাহলে তা অনিবার্যভাবে আন্তর্জাতিক সম্পর্কে নৈরাজ্য সৃষ্টি করবে মস্কোর ওপর চাপ বাড়াতে ওয়াশিংটন প্রস্তুত রয়েছে