Share |

কিশোরকে যৌন হয়রানী : ইমামের ৫ বছরের জেল

পত্রিকা রিপোর্ট
লন্ডন, ০৪ জুন : আরবী শিখতে আসা কিশোরকে যৌন হয়রানির দায়ে নটিংহামশায়ারের এক ইমাকে পাঁচ বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে আদালত। গত ৩১ মে বৃহস্পতিবার নটিংহামের আদালত এই রায় দেয়। এর আগে ২৩ মে একই আদালতে তাকে দোষি সাব্যস্ত করে।
সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি ৬১ বছর বয়সী মোহাম্মদ রবানি। তিনি নটিংহামশায়ারের স্নেইনটনের একটি মসজিদের ইমাম। ২৫ বছরের বেশি সময় ধরে তিনি ইমাম হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। তিনি স্থানীয় স্নেইনটনের সেন্ট স্টিফেন রোডের বাসিন্দা।
নটিংহ্যাম ক্রাউন কোর্টের শুনানি শেষে যৌন হয়রানির তিনটি অভিযোগে মোহাম্মদ রাবানিকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। মসজিদের ভেতরে ছোট একটি কক্ষে এক কিশোরকে হয়রানি করতেন। ইমাম এসব অভিযোগ অস্বীকার করে
আসছিলেন। যৌন হয়রানির এই ঘটনা ঘটে ১৯৯০ সাল থেকে ১৯৯২ সালের মধ্যে। ভুক্তভোগী ব্যক্তির বয়স ছিল তখন  ১২/১৩ বছর। ঘটনার প্রায় ২০ বছর পর ২০১৫ সালে ভুক্তভোগী ব্যক্তি পুলিশের কাছে অভিযোগ করেন।
রায় ঘোষণার সময় বিচারক বলেন, অনেক বিশ্বাস এবং আস্থা নিয়ে বাবা-মা কিশোরটিকে ধর্মীয় শিক্ষা নিতে ইমামের কাছে পাঠিয়েছিল। কিন্তু ইমাম পবিত্র একটি প্রতিষ্ঠানের ভেতরে নিজের প্রভাব খাটিয়ে কিশোরকে নিজের যৌন তৃপ্তি মেটানোর কাজে ব্যবহার করেছেন।