Share |

অভিষেকেই বাজিমাত : লন্ডন লিগে সেরা ‘ব্রিটিশ-বাংলা চেস ক্লাব’

পত্রিকা রিপোর্ট
লন্ডন, ০৪ জুন : ঐতিহ্যবাহী লন্ডন চেস লীগের চতুর্থ ডিভিশনে চ্যাম্পিয়ান হয়েছে ‘ব্রিটিশ বাংলা চেস এসোসিয়েশন’ (বিবিসিএ)। ২০১৫ সালে বাংলাদেশিদের গড়া এই দাবা ক্লাবের সদস্যরা প্রথমবার টুর্ণামেন্টে অংশনিয়েই বাজিমাত করলো। তারা চতুর্থ ডিভিশনে খেলার জন্য নিবন্ধিত হয়েছিল।
অর্জন আরও আছে। চ্যাম্পিয়ান হওয়ার মধ্যদিয়ে বিবিসিএ ১৩২ বছরের পুরনো এই দাবা লীগের তৃতীয় ডিভিশনে খেলার যোগ্যতা অর্জন করলো। ফলে আগামী বছর তারা লন্ডন চেস লীগের তৃতীয় ডিভিশনে খেলবে। এছাড়া এবারের টুর্ণামেন্টে সব ডিভিশন মিলিয়ে সেরা ২০ খেলোয়াড়ের মধ্যে জায়গা করে নিয়েছেন ক্লাবটির দুজন সদস্য। তালিকায় চতুর্থ নম্বরে আছেন মোস্তাক চৌধুরী এবং ৯ নম্বরে আছেন মোহাম্মদ আশরাফ হোসাইন। লন্ডন চেস লীগে মোট ৬টি ডিভিশনে খেলা হয়।  
লন্ডনের ১২টি ক্লাবের সাথে লড়াই করে চতুর্থ ডিভিশনে সেরা দল হলো বিবিসিএ। ৩০ মে বুধবার সেন্টাল লন্ডনের হলবোর্নের সিটাডাইন্স হোটেলে অনুষ্ঠিত হয় চূড়ান্ত আসর। এদিন ১২ তম ম্যাচে ওয়ানস্টেড এ্যান্ড উডফোর্ড চেসক্লাবকে ৭-১ ব্যবধানে হারিয়ে বিবিসিএ সাড়ে ১০ পয়েন্ট লাভ করে চ্যাম্পিয়ান হয়েছে।
১২টি ম্যাচ খেলে বিবিসিএ মাত্র একটি ম্যাচ হারে। আর অপর একটি ম্যাচে ড্র করেছে। বিবিসিএ মোট অর্জিত পয়েন্ট হয় সাড়ে ১০। আর নিউহ্যাম ১০ পয়েন্ট পেয়ে হয়েছে রানার্স আপ।
লন্ডন চেস লিগের নিয়ম অনুযায়ী সেরা দুটি দল পরবর্তী ধাপে উন্নীত হয়। ফলে  নিউহ্যাম চেস ক্লাবও আগামী বছরের লীগে তৃতীয় ডিভিশনে খেলবে। তবে চতুর্থ ডিভিশন মাড়িয়ে তৃতীয় ডিভিশনের যোগ্যতা অর্জন করতে তাদের লেগেছে তিন বছর। প্রথমবারের মতো লীগে যোগদান করে বিবিসিএ-এর চ্যাম্পিয়ান হওয়ার ঘটনাকে বিরল দৃষ্টান্ত বলে মন্তব্য করেছেন লন্ডন চেস লীগের সেক্রেটারি ব্রায়ান স্মিথ।
ব্রায়ান জানান, প্রায় ১০ বছর আগে ইম্পেরিয়াল কলেজ প্রথমবার লীগে যোগদান করে চ্যাম্পিয়ান হয়েছিল। বিজয়ের আনন্দে ক্লাবের প্রধান উপদেষ্টা আবু মুসা হাসান বিবিসিএ-এর টীম এবং লন্ডন চেস লিগের কর্মকর্তাদের মিষ্টি খাওয়ান।
চ্যাম্পিয়ান হওয়ায় সন্তোষ প্রকাশ করে বিবিসিএ-এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি এবং বাংলাদেশের জাতীয় দলের সাবেক দাবাড়ু তরিকুল আলম খান বলেন, ‘‘আমাদের লক্ষ্য হচ্ছে ক্রমান্বয়ে ডিভিশন ওয়ান এ খেলার যোগ্যতা অর্জন করা। ডিভিশন ওয়ানে গ্র্যান্ড মাষ্টার সমন্বয়ে গঠিত ক্লাবগুলোর সাথে প্রতিযোগিতায় অংশ নেয়ার জন্য আমরা উন্মুখ হয়ে আছি।’
২০১৫ সালের জুন মাসে ব্রিটেনে বসবাসরত বাংলাদেশের জাতীয় পর্যায়ের সাবেক খেলোয়াড় এবং লন্ডনের দাবাড়ুদের সমন্বয়ে বিবিসিএ যাত্র শুরু হয়। এরপর থেকে স্থানীয় সময় প্রতি রোববার বিকাল ৩টা থেকে বাংলা টাউনের টাওয়ার হ্যামলেটস প্যারেন্টস সেন্টারে নিয়মিতভাবে দাবা খেলা অনুষ্ঠিত হচ্ছে। একই স্থানে প্রতি মাসের শেষ রোববার অনুষ্ঠিত হয় মাসিক দাবা প্রতিযোগিতা। শুধুমাত্র ব্রিটিশ-বাঙালিরা নন, অন্যান্য জাতিগোষ্ঠীর চৌকস দাবাড়ুরাও বিবিসিএ’র সদস্য হচ্ছেন। বর্তমানে ক্লাবটির সদস্য সংখ্যা ৪০।
প্রসঙ্গত, গত বছর লন্ডনে অনুষ্ঠিত সামার চেস লীগে বিবিসিএ টীম চ্যাম্পিয়ান হয়েছে। এবছরের সামার চেস লীগে বিবিসিএ-এর তিনটি টিম অংশগ্রহণ করবে।
এছাড়া আগামী ৪ আগস্ট হাল শহরে অনুষ্ঠেয় ব্রিটিশ চেস চ্যাম্পিয়ানশীপের ব্যক্তিগত ওপেন র‌্যাপীড টুর্নামেন্টে বিবিসিএ’র ১৬ সদস্যের একটি প্রতিনিধিদল অংশ নেবে।