Share |

ফিস্ট রেস্টুরেন্টে টমি মিয়ার বাংলাদেশি স্ট্রিট ফুড

লন্ডন, ২ জুলাই : ব্রিটিশ সেলিব্রেটি শেফ এবং ইন্ডিয়ান শেফ অব দ্য ইয়ার এওয়ার্ডের প্রতিষ্ঠাতা টমি মিয়া এমবিই বলেছেন, বাংলাদেশের সত্যিকারের খাঁটি খাবার এবং বিশেষ করে স্ট্রিট ফুড বিশ্ব মর্যাদা পেতে পারে। যথার্থভাবে উপস্থাপন করা হলে শুধু বাংলাদেশি বা এশিয়ান ক্রেতা নয়, শ্বেতাঙ্গ তথা ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির মানুষও বাংলাদেশি স্ট্রিট ফুডের গুণগ্রাহী হবেন।
টমি মিয়া ২১ জুন পূর্ব লন্ডনের হোয়াইটচ্যাপল এলাকার ফিস্ট এন্ড মিষ্টি রেস্টুরেন্টে বাংলাদেশী স্ট্রিট ফুড বিশেষ মেনু চালু করেন। এসময় ফিস্ট-এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক শরিফ ইসলাম ও পরিচালক সিরাজুল ইসলাম এবং গ্রিন ইয়ার্ডের দুই ম্যানেজার স্পেশালিস্ট শেফ অ্যাডওয়ার্ড লান ও পিটার স্টোট উপস্থিত ছিলেন। টমি মিয়া ফিস্ট-এর প্রধান শেফকে সাথে নিয়ে তার নিজস্ব ভঙ্গিতে বাংলাদেশী খাবার তৈরী করেন। চিরপরিচিত আলু ভর্তা, ভেজিটেবল বিরিয়ানি অথবা কিডনি কাবাবে স্বাস্থ্যগত মান ও ভিন্নতা তুলে ধরেন।
ফিস্ট-এর এমডি শরিফ ইসলাম বলেন, আমরা চাই মানুষ বাস্তবে মায়ের হাতের রান্নার একটি স্বাদ আবারো ফিস্টের মাধ্যমে ফিরে পাক। ফিস্ট কখনো কৃত্রিম উপস্থাপনাকে গুরুত্ব দেয় না। আমরা সাধারণ খাবারকেই টাটকা এবং স্বাস্থ্যসম্মত মান বজায় রেখে উপস্থাপন করি। স্পেশালিস্ট শেফ এডয়ার্ড লান বলেন, ফিস্টের ব্যবস্থা দেখে আমি অভিভূত। কাস্টমাররা যথেষ্ট কমমূল্যে গ্রামীণ খাবারের স্বাদ পাচ্ছেন।  সেলিব্রেটি শেফ টমি মিয়া এমবিই বলেন, ফিস্ট বাংলাদেশী কমিউনিটির প্রাণকেন্দ্রে আলাদা এক মাত্রা নিয়ে এসেছে। দক্ষ এবং প্রশিক্ষিত ব্যবস্থাপনায় একে আরো এগিয়ে নিয়ে যেতে পারবেন।