Share |

ব্রেক্সিট : ইইউ’র বিরুদ্ধে মামলা ঠুকতে বলেছিলেন ট্রাম্প

পত্রিকা রিপোর্ট
লন্ডন, ১৬ জুলাই : ব্রেক্সিট কার‌্যকর করতে কোনো ধরণের সমঝোতায় না গিয়ে ইউরোপিয় ইউনিয়নের (ইইউ) বিরুদ্ধে মামলা ঠুকে দেয়ার পরামর্শ দিয়েছিলেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনা? ট্রাম্প। গত ১৫ জুলাই রোববার বিবিসি’র এন্ড্র মার শো’তে দেয়া সাক্ষাৎকারে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে এ কথা জানান।
যুক্তরাজ্য সফরে আসার আগে ডোনা? ট্রাম্প এক সাক্ষাৎকারে ব্রিটিশ টেবলয়েড দ্য সানকে  বলেছিলেন, ইইউ থেকে বিচ্ছেদ (ব্রেক্সিট নামে পরিচিত) কার্যকর করার বিষয়ে প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে তাঁর পরামর্শ শুনেননি। এখন ব্রেক্সিট বাস্তবায়নে মে’র সরকার যে পথে হাঁটছে, তা যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের মধ্যকার ঘনিষ্ঠ বাণিজ্য চুক্তির সম্ভাবনাকে শেষ করে দেবে।  ডোনা? ট্রাম্পের এই বক্তব্য তুমুল বিতর্ক সৃষ্টির পাশাপাশি বেশ কৌতুহলেরও জন্ম দেয়। সে কারণে বিবিসি’র সাংবাদিক এন্ড্র মার প্রধানমন্ত্রীর কাছে প্রশ্ন ছুঁড়েন- ‘পুরো জাতি জানতে চায়, ডোনা? ট্রাম্প আপনাকে কি পরামর্শ দিয়েছিলেন?’
জবাবে থেরেসা মে হেসেই বলেন, ‘তিনি আমাকে বলেছিলেন সমঝোতায় না যেতে এবং আমার উচিত ইইউ’র বিরুদ্ধে মামলা করা।’ গত বৃহস্পতিবার (১২ জুন) থেকে তিনদিনের যুক্তরাজ্য সফর করেন বেফাঁস মন্তব্যের জন্য ধিকৃত যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। রোববার তিনি ফিনল্যান্ডের উদ্দেশে যুক্তরাজ্য ত্যাগ করেন। 
শুক্রবার প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সঙ্গে যৌথ সংবাদ সম্মেলনেও ট্রাম্প বলেন, ব্রেক্সিট বাস্তবায়নে তিনি যে পরামর্শ দিয়েছিলেন, সেটিকে খুব কঠোর মনে হয়েছে মে’র। এ সময় তিনি যুক্তরাজ্যকে সমঝোতা ছাড়া বেরিয়ে না আসারও পরামর্শ দেন, যা তাঁর আগের পরামর্শের সাথে পুরোপুরো সাংঘর্ষিক।
যুক্তরাজ্য সফরে এসে ট্রাম্প আরও নানা গোল বাধিয়েছেন। প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে’র সামনেই তিনি সংবাদমাধ্যমকে বলেছেন, সদ্য পদত্যাগী বরিস জনসন প্রধানমন্ত্রী হলে ভাল করতেন এবং ব্রেক্সিট বাস্তবায়নের কাজটি অন্যভাবে করতে পারতেন। একই সময় তিনি প্রধানমন্ত্রী মে’র প্রসংশায়ও পঞ্চমুখ হন।
যুক্তরাজ্যের সঙ্গে ঘনিষ্ঠ বাণিজ্য সম্পর্কের সম্ভাবনা শেষ হয়ে যাচ্ছে মন্তব্য করার একদিন ট্রাম্প বলেন, যুক্তরাষ্ট্র ও যুক্তরাজ্যের মধ্যে ‘সর্বোচ্চ পর্যায়ের বিশেষ সম্পর্ক’ রয়েছে এবং বাণিজ্য চুক্তি অবশ্যই সম্ভব।