Share |

বাংলাদেশে শিশু-কিশোরদের অভিনব আন্দোলন : রাষ্ট্র, সরকার ও ব্যবস্থার প্রতি আস্থাহীনতারই প্রকাশ

গত এক সপ্তাহ নজীরবিহীন এক অধ্যায় পার করলো বাংলাদেশ। যুগ যুগ ধরে জেঁকে বসা দুর্নীতি এবং অনিয়ম আর ক্রমশ: তলানীতে পৌঁছে যাওয়া জাতির বিবেক আর মূল্যবোধকে সজোরে এক ধাক্কাই দিয়ে গেলো নিতান্ত শিশুদের রাষ্ট্র মেরামতের এই কর্মসূচীটি।
গত ২৯ জুলাই বাস চাপায় ঢাকার দুই স্কুল শিক্ষার্থী নিহত হবার পর এই ঘটনার বিচারের দাবিতে রাজধানীর সড়কগুলো নিয়ন্ত্রণে নিয়ে নেয় স্কুল শিশুরা। শিশুদের এই ট্রাফিক আইন আর রাস্তাঘাটে শৃঙ্খলার দায়িত্ব পালনের মধ্যদিয়ে বেরিয়ে এলো বাংলাদেশে ব্যবস্থার নামে কী নিদারুণ অব্যবস্থা চলছে! আর দুনিয়া দেখলো দেশের আইন প্রণয়নকারী থেকে শুরু করে আইনের রক্ষক, রাষ্ট্রের দায়িত্বশীল কর্মকর্তা, মন্ত্রী এবং বিচারালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্তরা পর্যন্ত কী অবলীলায় অবৈধ কাজগুলো করছেন, আইন লঙ্ঘন করছেন। গত এক সপ্তাহে দেশবাসীর কাছে ক্ষমতা অপব্যবহারকারীদের দুর্গন্ধময় যে চিত্র উঠে এসেছে তাতে সাধারণ মানুষ বিস্মিত, স্তম্ভিত।
এই যে মন্ত্রীর গাড়ির উ?োপথে চলা, বিচারপতির গাড়ীর কাগজ না থাকা, পুলিশ, সেনাবাহিনীর গাড়ী এবং তার ড্রাইভারদের লাইসেন্সবিহীন গাড়ী চালানোর মতো দন্ডনীয় অপরাধকে অনেকেই বাচ্চারা বড়দের ভুল ধরিয়ে দিয়েছে বলে পার পেতে চাইছেন, আসলেই কি এগুলো ভুল? আমরা সবাই জানি এগুলো বিশুদ্ধ অপরাধ। কিন্তু ক্ষমতার দম্ভ এসব আচরণকে অপরাধ হিসেবে দেখতে দিচ্ছে না।  
বাংলাদেশের শিশুদের গত এক সপ্তাহের কর্মকাণ্ড বিশ্বমিডিয়ার নজর কেড়েছে। এই ঘটনায় বিশ্ববাসী প্রমাণ পেলো, শুধু মানুষের জীবনের প্রতি শ্রদ্ধা দেখিয়ে সদিচ্ছার জোরে রাতারাতি কীভাবে সড়কে শৃঙ্খলা প্রতিষ্ঠা করা যায়। গত কয়েকদিনের ঢাকার যান চলাচলের দৃশ্য যারা দেখেছেন তারা এটা আশা করতে পারেন- ঠিক এভাবেই অন্যান্য দুর্গতি থেকেও এই রাষ্ট্রটিকে এই নুতন প্রজন্ম বের করে আনতে পারবে। তবে বাংলাদেশে শিশু-কিশোরদের অভিনব এই আন্দোলনকে সরকার ও রাষ্ট্রযন্ত্র যেভাবে দমনের চেষ্টা চালিয়েছে তা কোন মহলেই গ্রহণযোগ্য হয়নি।
শুধু দুই সহপাঠির মৃত্যুর বিচার চাইতেই এই শিশুরা রাস্তায় নেমেছিলো এটা মনে করলে ভুল হবে। তাদের সৌাগানে শুধু ট্রাফিক আইনের প্রয়োগ আর সড়ক দুর্ঘটনায় দায়ীদের শাস্তির দাবীই ছিলো না। বরং নানা জনস্বার্থবিরোধী কর্মকান্ডসহ জনগণের জীবনের নিরাপত্তাহীনতা, রাষ্ট্রীয় সম্পদের তসরূপ এবং চরম দুর্নীতির বিরুদ্ধেই ছিলো এসব সৌাগান।  
ফলে সরকারের শীর্ষমহলের আশ্বাসেও ভরসা করতে পারেনি এই শিশুরা। তারা নিশ্চয়ই অতীত অভিজ্ঞতা থেকে এই শিক্ষাটি নিয়েছে। বস্তুত, এই আন্দোলনের মধ্যদিয়ে বাংলাদেশের নতুন প্রজন্ম রাষ্ট্র, সরকার ও প্রচলিত ব্যবস্থার প্রতি আস্থাহীনতারই প্রকাশ ঘটিয়েছে। সরকারের উচিত এ থেকে যথার্থ শিক্ষা নেওয়া।