Share |

সিলেটে এমপি ইয়াহিয়ার গাড়িতে হামলা, গুলি

সিলেট, ৩ ডিসেম্বর : সিলেটের ওসমানীনগরে জাতীয় পার্টির সংসদ সদস্য ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়ার গাড়িতে হামলা চালিয়েছে দুর্বৃত্তরা। এ সময় আত্মরক্ষার্থে ফাঁকা গুলি করেন এহিয়া। এতে কেউ হতাহত হননি। ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া যুক্তরাজ্য প্রবাসী।  ওসমানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি)  
এস এম আল মামুন বলেন, ১ ডিসেম্বর শনিবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে ওসমানীনগরের বুরুঙ্গা এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির যুগ্ম মহাসচিব ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া এবারও সিলেট-২ আসন থেকে মহাজোটের প্রার্থী হিসেবে মনোনয়ন পেয়েছেন। এহিয়াকে প্রার্থিতা দেওয়ায় বিক্ষোভ করেছেন স্থানীয় আওয়ামী লীগ নেতাকর্মীরা। বিক্ষোভে আওয়ামী লীগের যেকোনো নেতাকে এই আসনে দলীয় মনোনয়ন দেওয়ার দাবি জানান তাঁরা।
ওসি এস এম আল মামুন জানান, রাতে স্থানীয় এক ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে ফেরার পথে বুরুঙ্গা এলাকায় একদল দুর্বৃত্ত সংসদ সদস্যের গাড়িতে হামলা চালায়। দুর্বৃত্তরা তাঁর গাড়ি লক্ষ্য করে ইট নিক্ষেপ করে। এ সময় আত্মরক্ষার্থে ফাঁকা গুলি করেন সংসদ সদস্য। পরে সংসদ সদস্যের সঙ্গীরা দুর্বৃত্তদের ধাওয়া করলে তারা পালিয়ে যায়।
ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ সংসদ সদস্যকে উদ্ধার করে তাৎক্ষণিক নিরাপত্তার জন্য থানায় নিয়ে আসে। হামলাকারীদের খুঁজে বের করার চেষ্টা চলছে বলে জানান ওসি।

সিলেট-২ আসনে মহাজোট থেকে মনোনীত জাতীয় পার্টির প্রার্থী ও এই আসনের বর্তমান সাংসদ ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়ার ওপর ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন বিশ্বনাথ উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা। তাঁদের অভিযোগ, সাংসদ ইয়াহইয়া চৌধুরী দলের নেতা-কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ করেন না। ৭২ ঘণ্টার মধ্যে ইয়াহইয়া চৌধুরী উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীদের সঙ্গে যোগাযোগ না করলে তাঁরা নির্বাচনে তাঁর পক্ষে কাজ করবেন না বলে সময়সীমা বেঁধে দিয়েছেন।
গত শুক্রবার সন্ধ্যায় বিশ্বনাথ উপজেলা জাতীয় পার্টির দলীয় কার্যালয়ে জরুরি সভা আহ্বান করে স্থানীয় নেতারা তাঁকে সময়সীমা বেঁধে দেন। সভায় সভাপতিত্ব করেন বিশ্বনাথ উপজেলা জাতীয় পার্টির আহ্বায়ক আবু বক্কর সিদ্দিক। সিলেট জেলা শ্রমিক পার্টির সাবেক যুগ্ম আহ্বায়ক এস এম রকিবের সঞ্চালনায় বক্তারা বলেন, অতীতের যেকোনো সময়ের তুলনায় বিশ্বনাথে জাতীয় পার্টি ও এর অঙ্গসংগঠন এখন অনেক বেশি শক্তিশালী ও সুসংগঠিত। উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা দলের চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের হাতকে আরও শক্তিশালী করতে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। বক্তারা বলেন, একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বর্তমান সাংসদ এহিয়া চৌধুরী আবারও মহাজোটের প্রার্থী মনোনীত হয়েছেন। কিন্তু তিনি মনোনয়নপত্র দাখিল করার সময় জাতীয় পার্টির কোনো নেতা-কর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ করেননি। বক্তারা ইয়াহইয়া চৌধুরীকে ৭২ ঘণ্টার সময়সীমা বেঁধে দিয়ে বলেন, এই সময়ের মধ্যে তিনি (ইয়াহইয়া চৌধুরী) উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীর সঙ্গে যোগাযোগ না করলে উপজেলা জাতীয় পার্টির নেতা-কর্মীরা ভিন্ন পথ অবলম্বন করতে বাধ্য হবেন।
ইয়াহইয়া চৌধুরী ২০১৪ সালের নির্বাচনে মহাজোটের প্রার্থী হয়ে স্বতন্ত্র প্রার্থীর সঙ্গে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে বিজয়ী হন।