Share |

বর্ণাঢ্য আয়োজনে বিসিএ-এর দ্বিতীয় এ্যাপ্রিসিয়েশন ডিনার অনুষ্ঠান সম্পন্ন

 লন্ডন, ২৮ জানুয়ারি : ব্রিটেনে বাংলাদেশী কারি শিল্পের প্রতিনিধিত্বশীল সংগঠন বাংলাদেশ ক্যাটারার্স এসোসিয়েশনের (বিসিএ) দ্বিতীয় এ্যাপ্রিসিয়েশন ডিনার সম্পন্ন হয়েছে। 
গত ১৭ জানুয়ারি বৃহস্পতিবার লন্ডনের ইম্প্রেশন হলে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন কারী শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট বিশিষ্টজন, স্পন্সরকারী প্রতিষ্ঠানের কর্মকর্তাবৃন্দ এবং ফ্রেন্ডস অফ কারী লাভার্স। বিশেষ অতিথি হিসেবে অনুষ্ঠানে উপস্থিত  ছিলেন অল পার্টি পার্লামেন্টেরিয়ান গ্রুপের ক্যাটারিং বিভাগের চেয়ারম্যান পল স্কলি এমপি ও রাইট অনারেবল স্টিফেন টিমস এমপি। 
জনপ্রিয় টিভি সংবাদ পাঠিকা ডা. জাকি রেজুয়ানা আনোয়ারের প্রাণবন্ত সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন বিসিএ সভাপতি মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল ইয়াকুব, সেক্রেটারি জেনারেল ওলি খান, প্রধান কোষাধ্যক্ষ সাইদুর রহমান বিপুল, সংগঠনের সাবেক সভাপতি পাশা খন্দকার, সাবেক সেক্রেটারী জেনারেল এম এ মুনিম ও বাংলাদেশ হাই কমিশনের কমার্শিয়াল কনস্যুলার এস এম জাকারিয়া হক। বক্তারা বলেন, ১৯৬০ সালে প্রতিষ্ঠিত  বাংলাদেশ  ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন (বিসিএ) প্রতিষ্ঠালগ্ন থেকে ব্রিটেনে কারি ইন্ডাস্ট্রির বিভিন্ন সমস্যা চি?িতকরণ, উত্তরণ এবং এই শিল্পের বহুমুখী অর্থনৈতিক ও সামাজিক সাংস্কৃতিক সম্ভাবনার ইতিবাচক দিকগুলো নিয়ে ধারাবাহিকভাবে কাজ করছে।
বিশেষ করে ব্রিটেনে  কারি শিল্পের দীর্ঘ দিনের প্রধানতম সমস্যা স্টাফ সংকট নিয়ে কাজ করছে বিসিএ। গত বছর  ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী থেরেসা মে ব্রেস্কিট  পরবর্তী যুক্তরাজ্যের জন্য যে নতুন  অভিবাসন পরিকল্পনা অনুমোদন করেছেন, সেখানে অ-ইউরোপীয়ানদের সাথে বাংলাদেশও সুবিধা পাবে; বিষয়টি বাংলাদেশী কারি শিল্পে জড়িতদের সাথে গোটা কমিউনিটির জন্য একটি সুসংবাদ হিসাবেও দেখছে বিসিএ।
বিসিএ বিশ্বাস করে রেস্টুরেন্টের ষ্টাফ সংকট নিয়ে সরকারের উচ্চ পর্যায়ে তাদের ধারাবাহিক লবিং-ই  এই সাফল্য এনেছে। বক্তারা বলেন, সম্ভাবনাময় কারি শিল্পের আরও সমৃদ্ধি এবং চলমান সমস্যাগুলোকে মোকাবেলা করতে কারি ইন্ড্রাস্ট্রির সাথে জড়িত সকলকে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করতে হবে। বক্তারা বিসিএ এওয়ার্ড স্পন্সরকারী প্রতিষ্ঠানের প্রতি কৃতজ্ঞতা ও আগামী যাত্রা পথে তাদের অব্যাহত সহযোগিতা কামনা করেন।
উল্লেখ্য, গত ২৫ নভেম্বর ২০১৮ পার্ক প্লাজায় অনুষ্ঠিত ১৩তম বর্ণাঢ্য  বিসিএ এওয়ার্ড অনুষ্ঠানের স্পন্সর ছিল কোবরা বিয়ার, কিংফিশার বিয়ার, শেফ অনলাইন, কানসারাস, স্কয়ার মাইল ইন্স্যুরন্সে, সানমার্ক, রাধুনী, ব্লু ব্লাক ডিল, শাপলা সিটি লিমিটেড, গান্ধী ওরিয়েন্টাল ফুড, এ্যারোমা আইসক্রিম এবং মাধুস। 
দ্বিতীয় এ্যাপ্রিসিয়েশন এওয়ার্ডে তাদেরকে সম্মানিত করল বিসিএ। বিশেষ অতিথি পল স্কালি এমপি ও রাইট অনারেবল স্টিফেন টিমস এমপি স্পন্সরদের হাতে সম্মাননা ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট তুলে দেন। 
 অনুষ্ঠানে সংগঠনের পক্ষ থেকে স্পন্সদের সম্মাননা ক্রেস্ট ও সার্টিফিকেট প্রদান করা হয়। তাঁরা হলেন কোবরা বিয়ার এর সেলস ডিরেক্টর স্যামসন শোহাইল ও  মনসন কোর, কিংফিশার  বিয়ারের সেলস কন্ট্রোলার- আনিস সাবউয়ালা, শেফ অনলাইনের প্রধান নির্বাহী এম মুনিম সালিক, গান্ধী ওরিয়েন্টাল লিমিটেড এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক দিনাশ মোদি, কানসার চকলেটস  এর ইন্দিরা কানসারা, স্কয়ার মাইল ইন্স্যুরেন্সে সিইও এম জে জেন নাইট এবং ডেভিড রে‌্যাথন, লিসামো অনলাইন সলিউশন এর পরিচালক  ইয়ান জোন্স,  রাধুনি স্পাইসেস পরিচালক প্রবল বড়ুয়া চৌধুরী ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক জিএম বুলবুল আহমেদ, ঢাকা রেজেন্সি হোটেল ও রিসোর্টের চেয়ারম্যান মুসলেহ উদ্দিন, আসলা এর পরিচালক এরিকসন ও হারদীপ সিং, শাপলা সিটি লিমিটিডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক বদরুজ্জামান, এ্যারোমা আইসক্রিম এর পরিচালক কাজী আহমেদ।অনুষ্ঠানে ছিল মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। সঙ্গীত পরিবেশন করেন শতাব্দি কর, শিবলুর রহমান আখিঁ ও শম্পা দেওয়ান। প্রীতিভোজের খাবারের মেন্যুতে ছিল বাংলাদেশী ঐতিহ্যিক খাবারের পরিবেশনা। 
প্রসঙ্গত বাংলাদেশ  ক্যাটারার্স এসোসিয়েশন (বিসিএ) বাংলাদেশী কারি ইন্ডাস্ট্রির  প্রতিনিধিত্বশীল সর্ববৃহৎ প্রতিষ্ঠান। বাংলাদেশীদের দ্বারা পরিচালিত এই ইন্ডাস্ট্রিতে কর্মী হিসেবে রয়েছেন লক্ষাধিক মানুষ। কারি ইন্ডাস্ট্রি থেকে সরকার প্রতি বছর আয় করছে ৪.২ বিলিয়নের বেশী। ব্রিটিশ খাদ্যভ্যাসে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রাখা কারি শিল্পের ইতিবাচক দিকগুলো মূলধারায় তুলে ধরতে ক্যাটারার্সদের বৃহৎ সংগঠন বিসিএ ধারাবাহিকভাবে আয়োজন করে আসছে। বিসিএ এওয়ার্ডসহ কারি শিল্পের সাথে সংশ্লিষ্ট নানা ধরণের অনুপ্রেরণা ও সেবামূলক কাজ, যা মূলধারায় প্রশংসিত। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি