Share |

২০২০ সালে লন্ডনে বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিক পালনের প্রস্তুতি

লন্ডন, ৪ ফেব্রুয়ারি : ২০২০ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিক বিলেতে যথাযোগ্য মর্যাদায় ও বর্ণাঢ্য আয়োজনে পালনের লক্ষ্যে বাঙালি জাতীয়বাদে বিশ্বাসী সামাজিক, সাহিত্যিক, সাংস্কৃতিক সংগঠন ও ব্যক্তিদের একটি প্রস্তুতিসভা গত ২৯ জানুয়ারি মঙ্গলবার পুর্ব লন্ডনের মাইক্রো বিজনেস সেন্টারে অনুষ্ঠিত হয়েছে।   বিবিসি বাংলা ও ভয়েস অব আমেরিকার সাবেক সাংবাদিক ও লেখিকা শামীম চৌধুরীর সভাপতিত্বে ও বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম, ইউকে’র সভাপতি সুজাত মনসুরের পরিচালনায় অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন কাউন্সিলর আহবাব হোসেন, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আনোয়ারুজ্জামান চৌধুরী, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল আহাদ চৌধুরী, সহপ্রচার সম্পাদক লুৎফুর রহমান ছায়াদ, অল ইউরোপিয়ান আওয়ামী সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক এডভোকেট জানে আলম, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক ফোরাম, ইউকের সভাপতি মোহাম্মদ নাজিমুদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক আব্দুল কাদির মুরাদ, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট, লন্ডন কমিটির সভাপতি নজরুল ইসলাম অকিব, বঙ্গবন্ধু লেখক সাংবাদিক ফোরাম, ইউকের সহ সভাপতি তৌহিদ ফিতরাত হোসেন, এ কে এম আব্দুল্লাহ, নাজ নাঈম, কোষাধ্যক্ষ ছায়েদুল খালেদ, যুগ্ম সম্পাদক নুরুন্নবী, সাংস্কৃতিক ব্যক্তিত্ব সত্যব্রত দাস স্বপন, মিডলসেক্স আওয়ামী লীগের সহসভাপতি নাজমুল হোসেন চৌধুরী, যুগ্ম সম্পাদক মিজানুর রহমান, যুক্তরাজ্য যুবলীগের সহ সভাপতি শামসাদুর রাহীন, সাবেক কাউন্সিলর মোহাম্মদ শহীদ আলী, কবি মোহাম্মদ ইকবাল, জুয়েল রাজ, শামীম আহমেদ, শিক্ষাবিদ ড. রোয়াব উদ্দিন, লেখক ইকবাল বাল্মিকী, আবৃত্তিকার ইমাম হোসেন, কমিউনিটি এ্যাক্টিভিস্ট আবুল ফয়েজ, বিএম শফিক, যুবনেতা কাজী মাসুম প্রমুখ।
সভায় বক্তারা বলেন, জাতির জনক বঙ্গবন্ধু সর্বকালের সর্বশ্রেষ্ঠ বাঙালি। আর আমরা হলাম তাঁর গর্বিত উত্তরাধিকার। আমাদের সৌভাগ্য যে আমরা বঙ্গবন্ধুর জন্মশতবার্ষিকী উদযাপনের সুযোগ পেয়েছি। সুতরাং আসুন মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের সকল শ্রেণী পেশার মানুষ ও নতুন প্রজন্মের অংশগ্রহণের মাধ্যমে জাতির জনকের জন্মশতবার্ষিককে স্মরণীয় করে রাখার জন্য এখন থেকে উদ্যোগী হই। তারা বলেন, বঙ্গবন্ধু আর বাংলাদেশ সমার্থক। তাই বঙ্গবন্ধুর জীবনাদর্শ নতুন প্রজন্মের নিকট তুলে ধরার মাধ্যমে তাদেরকে বাংলাদেশ ও আমাদের শিকড়ের সাথে পরিচয় করিয়ে দিতে হবে। সভায় সুজাত মনসুরকে সমন্বয়ক করে একটি স্টিয়ারিং কমিটি গঠন করা হয়। এছাড়া পরবর্তী সভায় পূর্র্ণাঙ্গ উদযাপন কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সংবাদ বিজ্ঞপ্তি