Share |

কৃতী শিক্ষার্থীদের বাংলাদেশ হাই কমিশনের সম্মাননা প্রদান

লন্ডন, ১৫ এপ্রিল : যুক্তরাজ্যে জিসিএসই এবং এ-লেভেল পরীক্ষা অসাধারণ ফলাফল করা বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত শিক্ষার্থীদের সম্মাননা দিয়ে দেশটিতে নিযুক্ত বাংলাদেশ হাইকমিশন। গত ৮ এপ্রিল সোমবার সেন্ট্রাল লন্ডনে একটি অভিজাত মিলনায়তনে বিশেষ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের হাতে সম্মাননা তুলে দেয়া হয়। এবার ‘বাংলাদেশ হাইকমিশন আউটস্টেনডিং অ্যাচিভমেন্ট অ্যাওয়ার্ড শীর্ষক’ এই সম্মাননা পেয়েছেন মোট ৮৬ জন শিক্ষার্থী। অনুষ্ঠানে শিক্ষার্থীদের অভিভাকরাও উপস্থিত ছিলেন। 
অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সরকারের অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তাফা কামাল। তিনি বক্তৃতায় বাংলাদেশের ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের কথা উল্লেখ করে বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আগামী দেড় দশকের মধ্যে বিশ্বের অন্যতম শীর্ষ অর্থনীতির দেশে পরিণত হবে। তিনি বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের সূদীর্ঘ সুসম্পর্কের ক্ষেত্রে যুক্তরাজ্যে বসবাসরত বাংলাদেশী-ব্রিটিশ কমিউনিটির বিশেষ ভূমিকার প্রশংসা করে বলেন, এই তরুণ মেধাবীরা বাংলাদেশ ও যুক্তরাজ্যের সম্পর্ক আরো গভীর ও সুদৃঢ় করবে।
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্যে সাইদা মুনা তাসমীন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার শিক্ষাকে স্থিতিশীল উন্নয়ন, নারীর অগ্রগতি এবং তথ্য-প্রযুক্তিতে দক্ষ তরুণ মানব সম্পদ তৈরির প্রধান মাধ্যম হিসেবে নিয়েছেন।
বাংলাদেশি-ব্রিটিশ কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের ‘যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের ইয়ং এ্যাম্বাসেডর’ হিসেবে উল্লেখ করে তিনি তাদের দু‘দেশের অর্থনীতি, ব্যবসা, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতির ক্ষেত্রে সুদৃঢ় ও সৌহাদ্যপূর্ণ সম্পর্ক গড়ে তুলতে উদ্যোগী হওয়ার আহবান জানান। এক্ষেত্রে হাই কমিশনের সর্বোচ্চ সহযোগিতা প্রদানের আশ্বাস দিয়ে তিনি বলেন, তৃতীয় প্রজম্মের এ কৃতী শিক্ষার্থীরা যাতে বাংলাদেশের প্রযুক্তি-নির্ভর উন্নয়ন ও ব্যবসা বাণিজ্যে সম্পৃক্ত হতে পারে সে জন্য বিশেষ প্রকল্প নেয়া হবে।
অর্থমন্ত্রী আ হ ম মোস্তফা কামাল ও হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম বিশিষ্ট অতিথিদের নিয়ে কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের হাতে পদক ও সনদপত্র তুলে দেন। অনুষ্ঠানের অন্যতম আকর্ষণ ছিল ব্রিটিশ-বাংলাদেশী কমিউনিটির শিল্পীদের বর্ণিল নাচ ও গান।
এ অনুষ্ঠানে ব্রিটিশ সাংসদ, যুক্তরাজ্য সরকারের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা, বাংলাদেশি-বৃটিশ কমিউনিটির বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ, কৃতী ছাত্র-ছাত্রীদের অভিভাবক ও শিক্ষকসহ প্রায় ৬শ অতিথি উপস্থিত ছিলেন। তারা এ সুন্দর অনুষ্ঠানটি প্রাণভরে উপভোগ করেন এবং এ অনুষ্ঠান আয়োজনের জন্য বাংলাদেশ হাই কমিশনের ভূয়সী প্রশংসা করেন।