Share |

২৫ জুন বিবিসিসিআই-এর নির্বাচন : প্রেসিডেন্ট পদেই সবার দৃষ্টি

পত্রিকা প্রতিবেদন
লন্ডন, ১০ জুন : বাংলাদেশি ব্যবসায়ীদের ঐতিহ্যবাহী সংগঠন ব্রিটিশ-বাংলাদেশ চেম্বার অব কমার্স অ্যান্ড ইন্ডাস্ট্রিজ (বিবিসিসিআই)।  অন্তঃকলহ আর মামলা মোকদ্দমা নিয়ে দীর্ঘদিন জর্জরিত থাকার পর অবশেষে আবারও সংগঠনটির নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে। আগামী ২৫ জুন মঙ্গলবার সংগঠনটির ৩৫ পরিচালকের ভোটে নির্বাচিত হবে নতুন নেতৃত্ব।  
শুরুতে এই সংগঠনের প্রেসিডেন্ট ছিলেন সী-মার্ক গ্রুপের চেয়ারম্যান ইকবাল আহমদ চৌধুরী। অন্তঃকলহের জের ধরে তিনি সংগঠন ছেড়ে যান। এরপর প্রেসিডেন্ট হলেন মিলিয়নার হিসেবে পরিচিত মুকিম আহমদ। তাঁর বিদায়ও সুখকর হয়নি। তারপর প্রেসিডেন্ট পদে এলেন কমিউনিটির পরিচিত মুখ মাতাব চৌধুরী।  
সংগঠনকে গতিশীল করে ব্যাপক সুনাম অর্জন করেন তিনি। এক মেয়াদে দায়িত্ব পালনের পর স্বেচ্ছায় সরে দাঁড়ান মাতাব চৌধুরী। কিন্তু তাঁর তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডসের প্রতিষ্ঠাতা এনাম আলী এমবিই প্রেসিডেন্ট নির্বাচিত হওয়ার পর শুরু হয় আবার গৃহবিবাদ। ওই নির্বাচন ও এনাম আলীর প্রার্থী হওয়ার যোগ্যতা নিয়ে নিয়ে উঠে নানা অভিযোগ। যা শেষ পর্যন্ত আদালতে গড়ায়। যে কারণে গত প্রায় তিন বছর মামলা নিয়ে জর্জরিত ছিল এই সংগঠন। নানা বিতর্ক সত্ত্বের মধ্যে এনাম আলী দুই বছর মেয়াদ পূর্ব করে  প্রেসিডেন্ট পদ ছাড়েন। এক সময়ের স্বনামধন্য এই প্রতিষ্ঠানে এবার প্রেসিডেন্ট কে হচ্ছেন সেদিকেই  সবার দৃষ্টি।
সর্বশেষ ২০১৬ সালে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে সাবেক প্রেসিডেন্ট মুকিম আহমদসহ কয়েকজন পরিচালক ভোট দেয়ার সুযোগ থেকে বঞ্চিত হন। এ নিয়ে শুরু হয় গৃহবিবাদ। যার রেশ ধরে বেশ কয়েকজন পরিচালক প্রকৃতপক্ষে ব্যবসায়ী কি-না, তা নিয়ে প্রশ্ন উঠে। তাই এবার যারা নির্বাচনে প্রার্থী হবেন তাদের ব্যবসায়িক প্রোফাইল কি সেদিকে নজর থাকবে পুরো কমিউনিটির।  
ইতিমধ্যে নির্বাচন কমিশন গঠন করে তফশীল ঘোষণা করা হয়েছে । নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন ইমিগ্রেশন জাজ বেলায়েত হোসাইন ও গ্রেটার সিলেট কাউন্সিলের সাবেক সভাপতি নুরুল ইসলাম মাহবুব। ঘোষিত তফশিল অনুযায়ী ২৫ জুন মঙ্গলবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ১৩ জুন মনোনয়ন দাখিল ও ১৮ জুন মনোনয়ন প্রত্যাহারের শেষ দিন। বিবিসিসিআইর ৩৫জন পরিচালক গোপন ব্যালটের মাধ্যমে আগামী দুই বছরের জন্য নতুন নেতৃত্ব নির্বাচিত করবেন।
বর্তমানে বিবিসিসিআই-এর অন্তবর্তীকালীন কমিটির প্রধান হিসেবে আছেন সংগঠনটির সাবেক প্রেসিডেন্ট ও পরিচালক শাহগীর বক্ত ফারুক। তাঁর কাছে প্রশ্ন ছিল নির্বাচনে প্রার্থীদের যোগ্যতা নিয়ে বিতর্ক এড়াতে এবার কি পদক্ষেপ নিচ্ছেন? জবাবে তিনি পত্রিকাকে বলেন, প্রার্থীদের প্রকৃতপক্ষে ব্যবসা আছে কি-না, সংগঠনের সংবিধান মত তাঁরা যোগ্য কি-না, এসব যাচাই-বাছাইয়ের জন্য নির্বাচন কমিশনকে বিশেষভাবে বলা হয়েছে। তিনি বলেন, প্রার্থীদের যোগ্যতা নিয়ে এবার কোনো বিতর্ক উঠুক এটি তাঁরা চান না। তাই প্রার্থীরা প্রকৃত পক্ষে ব্যবসা করেন কি-না এবং ব্যবসার মালিকানার কাগজপত্র সঠিক কি-না, তা যাচাইয়ের জন্য নির্বাচন কমিশনকে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। নিরপেক্ষ অবস্থানে থেকে নির্বাচন কমিশন কাজটি ভাল করতে পারবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি।  
শাহগীর বক্ত ফারুক জানান, ১০টি পদের মধ্যে ৭টি পদে সম্ভাব্য প্রার্থীরা ইতিমধ্যে মনোনয়ন দাখিল করেছেন। সভাপতি পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন বিবিসিসিআই লন্ডন রিজিয়নের সাবেক সভাপতি বশির আহমদ। এই পদে এখনও অন্য কোনো সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম শোনা যায়নি। আর ডাইরেক্টর জেনারেল পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন সাবেক ডিজি সাইদুর রহমান রানু ও ড. সানাওয়ার চৌধুরী। ফাইন্যান্স ডাইরেক্টর পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন জেএমজি এয়ার কার্গোর চেয়ারম্যান মনির আহমদ এবং লন্ডন রিজিয়নের প্রেসিডেন্ট পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন একাউন্টেন্ট আবুল হায়াত নুরুজ্জামান। তাছাড়া মেম্বারশীপ ডাইরেক্টর পদে মনোনয়ন দাখিল করেছেন গোলাম কিবরিয়া ওয়েস ও কমিউনিটি অ্যাফেয়ার্স ডাইরেক্টর পদে এমদাদ আহমদ। তবে সিনিয়র সভাপতি, সভাপতি ও ডাইরেক্টর অব ইন্টান্যাশনাল অ্যাফেয়ার্স পদে এখনও কেউ মনোনয়ন দাখিল করেননি। ১৩ জুন মনোনয়ন দাখিলের শেষ দিবসে চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশ করা হবে। ওইদিন পর্যন্ত প্রার্থী সংখ্যা আরও বাড়বে বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।  উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ২০ এপ্রিল বিবিসিসিআইর সর্বশেষ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। ওই নির্বাচনে ব্রিটিশ কারি অ্যাওয়ার্ডস এর প্রবর্তক এনাম আলী এমবিই সভাপতি নির্বাচিত হন। কিন্তু নির্বাচনের পরই অনিয়মের অভিযোগ এনে মামলা করেন সাবেক সভাপতি মুকিম আহমদ। এরপর মামলার গ্লানি টেনে কেটে যায় ওই কমিটির দুই বছরের মেয়াদ। ২০১৮ সালের ২০ এপ্রিল কমিটির মেয়াদ উত্তীর্ণ হয়ে গেলে গঠন করা হয় অন্তর্বর্তীকালীন নতুন কমিটি। চেম্বারের সাবেক সভাপতি শাহগির বক্ত ফারুককে প্রধান করে গঠিত ৪ সদস্যের অন্তবর্তীকালিন কমিটিতে রয়েছেন সাবেক ডিজি ওয়ালি তছর উদ্দিন এমবিই, মোহাম্মদ নূর মিয়া ও শফিকুল ইসলাম ।
সম্প্রতি মুকিম আহমদের দায়েরকৃত মামলা নিষপত্তি হওয়ায় অন্তবর্তীকালিন কমিটি নির্বাচন অনুষ্ঠানের উদ্যোগ গ্রহণ করে । ২৫ জুন নতুন নেতৃত্ব নির্বাচনের মধ্যদিয়ে অন্তবর্তীকালীন কমিটি বিলুপ্ত ঘোষণা করা হবে ।
এদিকে নির্বাচন কমিশনার বেলায়েত হোসাইন জানিয়েছেন, একটি সুষ্ঠু-সুন্দর শান্তিপুর্ণ নির্বাচন অনুষ্ঠানে তাঁদের সর্বাত্মক চেষ্টা থাকবে। এজন্য তিনি চেম্বার পরিচালকদের আন্তরিক সহযোগিতা কামনা করেন।