Share |

সংহতির সাহিত্য আড্ডা: মানসম্পন্ন ইংরেজি অনুবাদের তাগিদ

পত্রিকা প্রতিবেদন
লন্ডন, ৮ জুলাই : বাংলা সাহিত্যে বিশ্বমানের কাজ করে গেছেন অনেকেই। এখনও হচ্ছে। কিন্তু বৈশ্বিক জগতে বাংলা সাহিত্য অনেকটা অচেনা। আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলার অসাধারণ সৃষ্টিগুলোকে তুলে ধরতে এসবের মান সম্পন্ন ইংরেজি অনুবাদ প্রয়োজন। গত রোববার যুক্তরাজ্যের লন্ডনে অনুষ্ঠিত এক সাহিত্য আড্ডায় এমন মত প্রকাশ করেন কবি ও লেখকরা।
যুক্তরাজ্য সফররত কবি, লেখক ও সাংবাদিক আনিসুল হককে নিয়ে এই সাহিত্য আড্ডার আয়োজন করে সংহতি সাহিত্য পরিষদ। এতে বিশেষ অতিথি ছিলেন সাংবাদিক, কবি ও অনুবাদক কাদের মাহমুদ। পূর্ব লন্ডনের ব্রাডি আর্ট সেন্টারে অনুষ্ঠিত ওই সাহিত্য আড্ডায় যুক্তরাজ্যে বাংলা সাহিত্য চর্চায় নিবেদিত কবি ও লেখকরা উপস্থিত ছিলেন।  
আড্ডায় উঠে আসে বাংলা সাহিত্যের নানা পট-পরিবর্তন ও বিবর্তনের কথা। পাঠের অভ্যাস, বাংলা বানান রীতি, অনুবাদ সাহিত্য এবং বাংলা একাডেমির ভূমিকা সহ নানা বিষয়ে অতিথিদের মতামত জানতে চান অনেকেই। ছিল ছাপা বই ও সংবাদপত্রের ভবিষ্যত নিয়েও প্রশ্ন। কথা হয় সমালোচনা সাহিত্যের অনুপস্থিতি নিয়েও।  
আনিসুল হক বলেন, যারা বাংলার লেখক, তাঁরা বাংলার পাঠকদের জন্যই লেখেন। বিদেশী কেউ সেটি পড়লো কি না, তা মূখ্য নয়। তবে আন্তর্জাতিক অঙ্গণে বাংলা সাহিত্যের সৌন্দর্য জানান দিতে পারলে ভাল। এ জন্য চাই বাংলা সাহিত্যের ভাল মানসম্পন্ন ইংরেজি অনুবাদ। আনিসুল হক বলেন, যেসব দেশ রাজনৈতিকভাবে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠে সেসব দেশের সাহিত্য-সংস্কৃতিও নজর কাটতে শুরু করে।  
নিজেকে একজন আশাবাদী মানুষ আখ্যা দিয়ে আনিসুল হক বলেন, বাংলাদেশ আর্থিক এবং সুশাসনের দিক থেকে যখন ভাল করবে, তখন বাংলা সাহিত্যের মানও বেড়ে যাবে।  
এক প্রশ্নের জবাবে আনিসুল হক বলেন, এখন প্রবাসী লেখক বলে কিছু নেই। প্রযুক্তির কল্যাণে এখন সবাই যেন একই গ্রামের বাসিন্দা।  কবি কাদের মাহমুদ বিলেতে বাংলা সাহিত্য আড্ডার নানা স্মৃতি তুলে ধরেন। তিনি বলেন, ভাল লিখতে হবে, বেশি বেশি পড়তে হবে। প্রায় তিন ঘন্টাব্যাপী অনুষ্ঠানের শুরুতেই আনিসুল হকের ‘মা’ উপন্যাসের অংশ বিশেষ অভিনয়ের ছলে উপস্থাপন করেন মুনিরা পারভিন ও শতরুপা চৌধুরী। উপস্থিত বিলেতের বাংলা কবিরা স্বরচিত কবিতা ও ছড়া পাঠ করেন।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংহতির সভাপতি আবু তাহের। শুভেচ্ছা বক্তব্য রাখেন সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক সাইদা তুহিন চৌধুরী। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করার পাশাপাশি স্বরচিত ছড়া পাঠ করে অনুষ্ঠান মাত করেন রেজওয়ান মারুফ।