Share |

মন্ত্রীপতনির ক্ষমতার দম্ভ : রেলমন্ত্রীর পদত্যাগ হবেই টিটিইর জন্য যথার্থ পুরস্কার

রেলমন্ত্রীর স্ত্রীর নির্দেশে রেলের টিটিই’কে চাকরি থেকে বরখাস্ত করেছে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ। ঘটনাটি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাতে ঈশ্বরদি থেকে ঢাকাগামী ট্রেনে বিনাটিকেটে রেলভ্রমণের কারণে। রেলমন্ত্রীর আত্মীয়দের জরিমানা করায় টিকেট পরিদর্শক (টিটিই) শফিকুল ইসলামকে বরখাস্ত করা হলেও এনিয়ে?ব্যাপক প্রতিক্রিয়ার মুখে তাঁর বরখাস্তের আদেশ প্রত্যাহার করা হয়েছে। তবে একজন মন্ত্রীর স্ত্রীর নিদের্শে বরখাস্তের ঘটনাটি নিয়ে গণমাধ্যমসহ সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে তোলপাড় থামেনি এখনো। মন্ত্রীর আত“ীয় পরিচয়দানকারী যাত্রীদের অভিযোগ, টিটিই জরিমানা শুধু করেননি, তাদের সাথে দুর্ব্যবহার করেছেন এবং ঘুষও দাবী করেছেন। গণম্যাধ্যম সূত্রে জানা গেছে, পুরো ঘটনা নিয়ে?তিন সদস্যের তদন্ত কমিটিও কাজ শুরু করেছে।
রাষ্ট্র পরিচালনার দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিবর্গের নিরীহ জনগণ কিংবা অধস্তন কর্মকর্তাদের ওপর দাপট প্রদর্শনের ঘটনা বাংলাদেশে নতুন নয়। তবে মন্ত্রীদের স্ত্রীরা যে এতো ক্ষমতাধর তা নতুন করে প্রত্যক্ষ করল বাংলাদেশের মানুষ। যাত্রীর সাথে যা-ই ঘটুক না কেন, সেটি দেখভালের দায়িত্ব সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের। সেখানে মন্ত্রীর স্ত্রী ক্ষমতা দেখাবেন, তাও একজন কর্মকর্তাকে মোবাইলে ফোন করে বরখাস্ত করার মতো গুরুতর বিষয়ে- এটি সম্পূর্ণ অগ্রহণযোগ্য।
সংবাদ মাধ্যমে প্রকাশিত খবরে জানা যাচ্ছে, খুলনা থেকে ঢাকাগামী আন্তঃনগর সুন্দরবন এক্সেেপ্রস ট্রেনে ঈশ্বরদী রেলওয়ে জংশন স্টেশন থেকে তিন যাত্রী বিনা টিকিটে এসি কেবিনে ঢাকা যাচ্ছিলেন। এ সময় কর্তব্যরত টিটিই শফিকুল ইসলাম তাদের টিকিট দেখতে চাইলে তারা রেলমন্ত্রীর আত্মীয় পরিচয় দেন। টিটিই বিষয়টি তাৎক্ষণিকভাবে পাকশী বিভাগীয় রেলের সহকারী বাণিজ্যিক কর্মকর্তা নুরুল আলমের সঙ্গে আলাপ করলে তিনি সর্বনিম্ন ভাড়া নিয়ে এসি টিকিট না করিয়ে সাধারণ কোচের টিকিট কাটার পরামর্শ দেন। এসিওর পরামর্শ অনুযায়ী টিটিই তাদের ৩৫০ টাকা জনপ্রতি হিসেবে ১০৫০ টাকা নিয়ে তিনটি সুলভ শ্রেণীর নন-এসি কোচে সাধারণ আসনের টিকিট দেন। এ সময় ট্রেনে কর্তব্যরত অ্যাটেনডেন্টসহ অন্যরা উপস্থিত ছিলেন। ওই তিন ট্রেনযাত্রী তাৎক্ষণিকভাবে কোনো অভিযোগ না করলেও ঢাকায় পৌঁছে রেলের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের কাছে টিটিই শফিকুল ইসলামের বিরুদ্ধে অসদাচরণের অভিযোগ করেন। এরপর শফিকুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।
এই তিন যাত্রীকে আত্মীয় হিসেবে অস্বীকার করলেও টিটিই বরখাস্তের পেছনে তার স্ত্রীর সম্পৃক্ততা গণমাধ্যমে প্রকাশ পেলে সরাসরি সুর পা?ে নানা নাটকীয়তার পর সেই যাত্রীদের আত্মীয় হিসেবে কবুল করেছেন। এখন স্ত্রীর এসব কাণ্ডে বিব্রত ও লজ্জিত বলেও স্বীকার করছেন রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন। এদিকে এ ঘটনায় রেলমন্ত্রীকে সাময়িক পদত্যাগ করার আহ্বান জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি), যাত্রী কল্যাণ সমিতিসহ বিভিন্ন সংগঠন। টিআইবির পক্ষ থেকে রেলমন্ত্রীর ‘স্ত্রীর তিন আত্মীয়কে’ জরিমানার ঘটনায় সংশ্লিষ্ট টিকিট পরিদর্শককে (টিটিই) সাময়িক বরখাস্ত করাকে ন্যাক্কারজনক দৃষ্টান্ত হিসেবে উল্লেখ করা হয়েছে।
নতুন স্ত্রীর কেলেঙ্কারীতে বিব্রত মন্ত্রী এখন টিটিইকে পদোন্নতি বা অন্যান্য সুযোগ সুবিধা দেবার লোভ দেখাচ্ছেন। বলছেন, তাকে পুরস্কৃত করার কথাও ভাববে রেলপথ মন্ত্রণালয়।
আমরা মনে করি, এই ঘটনার সম্পূর্ণ দায়?কাঁধে নিয়ে রেলমন্ত্রীর অবিলম্বে পদত্যাগ করা উচিৎ।?তাতে ক্ষমতাশালীদের অনেকের জন্যই দম্ভ প্রদর্শনের শিক্ষা হবে। একই সাথে রেলের যে কর্মকর্তা কোনকিছু যাচাই না করেই মন্ত্রীপতœীর হুকুম তামিল করেছেন তাঁর বিরুদ্ধেও কঠোর ব্যবস্থা নেয়া প্রয়োজন। সেটিই হবেই টিটিইর জন্য যথার্থ পুরস্কার।