Share |

ঐতিহাসিক অলিম্পিক ভেন্যু ‘ইটনে’ এবারের নৌকা বাইচ

অনুষ্ঠিত হবে ২১শে আগস্ট, বিজয়ী দল পাবে সোনার ট্রফি
পত্রিকা প্রতিবেদন
লণ্ডন, ১০ মে: আগামী ২১শে আগস্ট অনুষ্ঠিত হবে ১২তম ন্যাশনাল নৌকা বাইচ। এবারের প্রতিযোগিতার জন্য ভেন্যু বিশ্বখ্যাত শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান ইটনের কোলঘেষা ডর্নি লেইক। এই লেইকে অনুষ্ঠিত হয়েছিলো ২০১২ লণ্ডন অলিম্পিকের নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতা। ভেন্যুর ধারণক্ষমতা প্রায় ৭ হাজার বলে জানা গেছে।
গত ৭ মে ইটনের ডর্নি লেইকে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে নৌকা বাইচের পরিবর্তিত তারিখ ঘোষণার পাশাপাশি এবারের আয়োজনের বিস্তারিত তুলে ধরেন আয়োজক মোহাম্মদ আবদুল আজিজ।
পুরো আয়োজনটি রানির সিংহাসনে আরোহণের প্লাটিনাম জুবিলিকে উৎসর্গ করা হবে। আর একই সাথে এই আয়োজনের মধ্যদিয়ে উদযাপন করা হবে ব্রিটেন-বাংলাদেশের বন্ধুত্বের সুবর্ণজয়ন্তী। তাই এবারের আয়োজনকে নানাভাবে বর্ণাঢ্য করে তুলতে ব্যস্ত রয়েছেন আয়োজকরা।
বাংলাদেশের একসময়ের কোচ ক্রিকেট কিংবদন্তী স্যার গর্ডন গ্রীনিজ, হাউজ অব লর্ডসের সদস্য পলা মঞ্জিলা উদ্দিন এবং সাবেক ব্রিটিশ কূটনীতিক আনোয়ার চৌধুরী এবারের নৌকা বাইচ আয়োজনের সম্মানিত অ্যাম্বাসেডার হিসেবে কাজ করছেন। এছাড়া এবারের আয়োজনের পেট্রন হিসেবে রয়েছেন যুক্তরাজ্যে নিযুক্ত বাংলাদেশের হাইকমিশনার সাইদা মুনা তাসনিম। তারা নিজ নিজ পরিসরে এবারের প্রতিযোগিতার বিষয়ে জনসচেতনতা তৈরীতে কাজ করবেন।
সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, এবারের আয়োজনে মোট ১৮টি দল নেয়া হবে। একসাথে ৬টি করে নৌকা প্রতিযোগিতায় নামবে। চ্যাম্পিয়ান দলকে দেয়া হবে ৫ হাজার পাউণ্ড, সাথে রয়েছে সোনার মেডেল এবং ১৮ ক্যারেটের সোনায় মোড়ানো ট্রফি।
সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য রাখেন সাইদা মুনা তাসনিম, আনোয়ার চৌধুরী, স্যার গর্ডন গ্রীনিজ এবং শেফ অন লাইন প্রধান নির্বাহী এবং?আরটা এওয়ার্ডের প্রবর্তক মোহাম্মদ আবদুল মুনিম
সালিক। বক্তারা সবাই নৌকা বাইচ প্রতিযোগিতায় অংশ নিতে কমিউনিটির বিভিন্ন সংগঠনের প্রতি আহবান জানান। এই আয়োজনকে উৎসবমুখর করে তুলতে ২১শে আগস্ট ইটনের ডর্নি লেইকে কমিউনিটির মানুষজনের আন্তরিক উপস্থিতি কামনা করেন।
উল্লেখ্য, কোনো প্রবেশ ফি ছাড়াই দর্শকরা এবারের ন্যাশনাল নৌকা বাইচ উৎসব উপভোগ করতে পারবেন। উৎসবের উদ্যোক্তা মোহাম্মদ আবদুল আজিজ জানান, এবারের আয়োজনে তাঁর ৪ পুত্র আবদুর রহমান, রাসেল রহমান, রুমেল রহমান ও রাইয়ান রহমান এবং?জামাতা কামাল আলী সক্রিয়ভাবে সহযোগিতা করছেন। নৌকা বাইচের ওয়েবসাইট ষষষ.ভমষপটঠটধ্র.ডম.লপ ভিজিট করে আয়োজনের আরও বিস্তারিত জানা যাবে।