কামাল আহমেদ
গত বছরের নভেম্বরের কথা। আমরা অনেকে খবরটি হয়তো খেয়াল করিনি। তবে তা বিশ্ব সংবাদের শিরোনাম হয়েছিল। কিশোরী কিংবা বালিকাদের

সঙ্গীতা ইমাম  
১৯৯৯ সালের ৬ মার্চ বাংলাদেশের সাংস্কৃতিক অঙ্গনে এক ভয়াবহ রক্তাক্ত দিন। এই দিনে যশোর টাউন হল মাঠে বাংলাদেশ উদীচী

কামাল আহমেদ
লন্ডন স্কুল অব ইকোনমিকসের ইমেরিটাস প্রফেসর মেঘনাদ জগদীশচন্দ্র দেশাই লেবার পার্টির সদস্য এবং লর্ডসভার সদস্য। কয়েক দশক আগে কোনো

ড. মুহম্মদ মনিরুল হক
যে ভাষা মানে না কোনো শৃঙ্খল, সহ্য করে না বর্বরতা-সেটিই আমার মায়ের মুখের ভাষা, প্রিয় বাংলা ভাষা। এ ভাষা চেতনায় ঋদ্ধ

একটি দল কখন অন্যান্য দলকে ছাড়িয়ে যায়? যখন দলটি নীতি, আদর্শ কিংবা সাংগঠনিক শক্তিতে তাদের থেকে এগিয়ে থাকে এবং জনগণের আকাক্ষা ধারণ করে। এ কথা মনে

কামাল আহমেদ   
১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসা দিবসের নানা আয়োজন নিয়ে গণমাধ্যম যখন ব্যস্ত, তখন কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে কয়েকজন অভিভাবক

মো: আব্দুল মতিন
বাংলাদেশের নতুন নাগরিকত্ব আইন করতে যাচ্ছে। এ প্রস্তাবিত খসড়া আইন ২০১৬ সালের ১লা ফেব্রুয়ারী বাংলাদেশের মন্ত্রী সভায়

রাজিয়া সুলতানা
বছর ঘুরে আবারও এসেছে ফেব্রুয়ারি; ভাষার মাস, আবেগের মাস। আমাদের প্রচলিত প্রবণতা অনুসারে ভাষা নিয়ে আলোচনা করার মাস। দুঃখজনক

মোফাজ্জল করিম
রবীন্দ্রনাথ ঠাকুরের ‘পরশপাথর’ কবিতাটির সেই চমকপ্রদ কাহিনীটির কথা নিশ্চয়ই মনে আছে। সেই যে ‘খ্যাপা খুঁজে