Share |

পাকিস্তানকে হারিয়ে বাংলাদেশ নারী দলের শুভ সূচনা

২২ নভেম্বর : বিশ্বকাপ বাছাইপর্বের ম্যাচে পাকিস্তানকে হারিয়ে শুভ সূচনা করেছে বাংলাদেশ নারী ক্রিকেট দল। রোববার হারারেতে পাকিস্তান নারী ক্রিকেট দল আগে ব্যাট করে ৫০ ওভারে ৭ উইকেট হারিয়ে ২০১ রান করে। জবাবে ৭ উইকেট হারিয়ে শেষ ওভারের চতুর্থ বলে জয় তুলে নেয় বাংলাদেশ।
রুমানা আহমেদ এবং ফারজানা হকের দুর্দান্ত ব্যাটিং নৈপূণ্যে অসাধারণ জয়টি ধরা দিলো। ৪৪ বলে ৫০ রানে অপরাজিত থাকেন রুমানা আহমেদ। ৬টি বাউন্ডারিতে নিজের ইনিংস সাজান তিনি। এছাড়া টপ অর্ডার ব্যাটার ফারজানা হক ৯০ বল খেলে করেন ৪৫ রান।
এদিন টস জিতে পাকিস্তানকে ব্যাট করার আমন্ত্রণ জানান বাংলাদেশ দলের অধিনায়ক নিগার সুলতানা।
আগে ব্যাট করতে নেমে শুরুতেই ব্যাটিং বিপর্যয়ের শিকার হয় পাকিস্তান। ১৪ রানের মাথায় রানআউট হয়ে যান আয়েশা জাফর। আরেক ওপেনার মুনিবা আলি আউট হন ২২ রান করে। ১২ রান করে বিদায় নেন অধিনায়ক জাভেরিয়া খান।
মিডল অর্ডারে ওমাইমা সোহাইলকে শূন্য রানেই ফিরিয়ে দেন বাংলাদেশের বোলার রিতু মনি। ইরাম জাভেদকে ৩ রানে সাজঘরের পথ দেখান নাহিদা আকতার। ৪৯ রানে ৫ উইকেট পড়ার পর বাংলাদেশ যখন আশায় ছিল খুব দ্রুত বাকিদেরকেও প্যাভিলিয়নে পাঠাবেন, তখনই দৃঢ়তার সঙ্গে দাঁড়িয়ে যান নিদা দার এবং আলিয়া রিয়াজ। এ দু’জন ১৩৭ রানের জুটি গড়েন। ১১১ বল খেলে ৮৭ রান করেন নিদা দার। আলিয়া রিয়াজ তো আউটই হননি। ৮২ বল খেলে ৬১ রানে অপরাজিত থাকেন তিনি। শেষ পর্যন্ত ৭ উইকেট হারিয়ে পাকিস্তান করে ২০১ রান। বাংলাদেশের বোলারদের মধ্যে রিতু মনি এবং নাহিদা আক্তার নেন ২টি করে উইকেট। ১টি করে উইকেট নেন সালমা খাতুন এবং রুমানা আহমেদ।
জবাব দিতে নেমে ১০ রানের মাথায় ওপেনার মুর্শিদা খাতুনকে হারিয়ে ফেলে বাংলাদেশ। ৯ রান করেন তিনি। এরপর ৭০ রানের জুটি গড়েন শারমিন আক্তার এবং ফারজানা হক। ৬৭ বলে ৩১ রান করে আউট হন শারমিন আক্তার। অধিনায়ক নিগার সুলতানা মাঠে নেমে কিছুই করতে পারেননি। ২৬ বল খেলে করেন মাত্র ৪ রান। ৯৮ রানের মাথায় ৪র্থ উইকেট পড়ার পর ঘুরে দাঁড়ান রুমানা আহমেদ এবং রিতু মনি। এ দু’জনের ব্যাটে গড়ে ওঠে ৬১ রানের জুটি। ৩৭ বলে ৩৩ রান করে আউট হন রিতু। লতা মন্ডল এবং ফাহিমা খাতুন পরপর গো?েন ডাক মারায় কিছুটা শঙ্কা জেগেছিল বৈ কি। একই সঙ্গে পাকিস্তানি ওমাইম সোহাইলের হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনাও তৈরি হয়। কিন্তু সালমা খাতুন তার হ্যাটট্রিক ঠেকিয়েই দেননি শুধু। রোমানা আহমেদের সঙ্গে জুটি বেধে বাংলাদেশকে নিয়ে যান জয়ের বন্দরে। সালমা এবং রোমানা- এ দু’জন মিলে গড়েন ৪২ রানের দারুণ একটি জুটি।