Share |

বাংলাদেশের মেয়েরা প্রথমবার বিশ্বকাপে

ঢাকা, ২৮ নভেম্বর : জিম্বাবুয়ের হারারেতে ২০২২ নারী ওয়ানডে বিশ্বকাপের বাছাইপর্ব শেষ হওয়ার কথা ছিল আগামী ৫ ডিসেম্বর। ততদিন পর্যন্ত আর অপেক্ষা করতে হচ্ছে না। আফ্রিকায় করোনাভাইরাসের নতুন ধরন ছড়িয়ে পড়ায় শানিবার মাঝপথেই নয় দলের বাছাইপর্ব বাতিলের ঘোষণা দিয়েছে আইসিসি। এই সিদ্ধান্ত আশীর্বাদ হয়ে এসেছে বাংলাদেশ নারী দলের জন্য। অবসান হলো এক দীর্ঘ অপেক্ষার। প্রথমবারের মতো ওয়ানডে বিশ্বকাপে জায়গা করে নিলেন বাংলাদেশের মেয়েরা। বাছাইপর্ব থেকে বিশ্বকাপের টিকিট পাওয়ার কথা ছিল তিনটি দলের। এখন পুরো প্রতিযোগিতাই বাতিল হয়ে যাওয়ায় এই তিন দল র‌্যাংকিংয়ের ভিত্তিতে নির্বাচন করেছে আইসিসি। মেয়েদের ওয়ানডে র‌্যাংকিংয়ে পাঁচ নম্বরে থাকার সুবাদে কপাল খুলে গেছে বাংলাদেশের। আগামী বছর নিউজিল্যাণ্ডে হতে যাওয়া ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশের সঙ্গী হয়েছে র‌্যাংকিংয়ে সাত ও আটে থাকা ওয়েস্ট ইণ্ডিজ ও পাকিস্তান। স্বাগতিক নিউজিল্যাণ্ডের সঙ্গে আগেই মূলপর্বে খেলা নিশ্চিত করেছে অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যাণ্ড, দক্ষিণ আফ্রিকা ও ভারত। এই আটটি দল খেলবে ২০২২ বিশ্বকাপে। বিশ্বকাপের টিকিটের পাশাপাশি ২০২২-২৫ চক্রের আইসিসি নারী চ্যাম্পিয়নশিপে খেলাও নিশ্চিত হয়েছে বাংলাদেশ, পাকিস্তান ও ওয়েস্ট ইণ্ডিজের। সেখানে তাদের সঙ্গী শ্রীলংকা ও আয়ারল্যাণ্ড।
করোনার প্রকোপে বিভিন্ন দেশ আফ্রিকার দেশগুলোর সঙ্গে বিমান যোগাযোগ বন্ধ করার সিদ্ধান্তের কারণেই মূলত বাছাইপর্ব বাতিল করতে বাধ্য হয়েছে আইসিসি। কাল শ্রীলংকা দলের একজন স্টাফ করোনা পজিটিভ হওয়ায় ওয়েস্ট ইণ্ডিজের বিপক্ষে তাদের ম্যাচটি প্রথমে স্থগিত করা হয়। পরে বাতিল হয়ে যায় পুরো প্রতিযোগিতা। দলগুলোকে যত দ্রুত সম্ভব দেশে ফেরত পাঠানোর কথা জানিয়েছে আইসিসি। হারারেতে এমন আতঙ্কের আবহের মধ্যেই দুঃসংবাদের হাত ধরে আসা বহুল কাক্সিক্ষত সুখবরে উচ্ছ্বাসে ভাসছেন সালমা, জাহানারারা। টি ২০ বিশ্বকাপের স্বাদ পেলেও ওয়ানডে বিশ্বকাপে কখনো খেলা হয়নি বাংলাদেশ নারী দলের। আগের দুবার বিদায় নিতে হয়েছিল বাছাইপর্ব থেকেই। এবার প্রথম তিন ম্যাচের দুটিতে জিতলেও থাইল্যাণ্ডের কাছে অপ্রত্যাশিত হারে কিছুটা চাপে ছিল নিগার সুলতানার দল। কিন্তু তাদের জন্য সরাসরি বিশ্বকাপের দুয়ার খুলে দিল করোনা!