Share |

মেয়র লুতফুর রহমানের কেবিনেটে কারা থাকছেন?

পত্রিকা প্রতিবেদন
লণ্ডন, ১৬ মে: টাওয়ার হ্যামলেটস কাউন্সিল নির্বাচনে বিশাল জয়?নিয়ে?পুনরায় নির্বাহী মেয়র পদে আসীন হয়ে চমক দেখিয়েছেন লুতফুর রহমান। তাঁর দল অ্যাসপায়ার পার্টিও কাউন্সিলার পদের ২৪টি আসন জিতে একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করে তাক লাগিয়ে দিয়েছে। এখন সবার দৃষ্টি লুতফুর রহমানের কেবিনেটের দিকে। কে হচ্ছেন ডেপুটি মেয়র ও স্পীকার, কেবিনেটে কারা থাকছেন- এসব নিয়েই চলছে নানা জল্পনা।
আগামী ২৫শে মে নব-নির্বাচিত কাউন্সিলের প্রথম অধিবেশন অনুষ্ঠিত হবে। তার আগেই ডেপুটি মেয়র নিয়োগ, কেবিনেট ও অন্যান্য কমিটি গঠনের কাজ চলছে।
এসপায়ার পার্টির সাথে ঘনিষ্ঠ সূত্র মতে, প্র্রশাসনে সকল দলমতের সমন্বয় ঘটিয়ে সবাইকে নিয়েই একসাথে কাজ করার চেষ্টা করে যাচ্ছেন মেয়র লুতফুর রহমান। জানা গেছে, কেবিনেট সদস্যসহ বিভিন্ন কমিটি মিলিয়ে কাউন্সিলে প্রায় দুই ডজনেরও বেশি দায়িত্বশীল পদ রয়েছে। বিভিন্ন দলের কাউন্সিলারের আনুপাতিক সংখ্যার হিশেবে এসব দায়িত্ব বণ্টন করতে হয়। তবে বিজয়ী দল অ্যাসপায়ারের সাথে ঘনিষ্ঠ একটি সূত্রে জানা গেছে, আনুপাতিক সংখ্যার হিশেবের বাইরেও বিরোধী দলের কাউন্সিলারদের গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব দিতে চান মেয়র লুতফুর রহমান। এ নিয়ে বিরোধী দলগুলোর সঙ্গে আলোচনার পাশাপাশি ব্যক্তিগতভাবেও কথাবার্তা চলছে বলে জানা গেছে।
উল্লেখ্য, একজন স্ট্যাটিউটরি ডেপুটি মেয়রের সাথে আরো দুটি ডেপুটি মেয়রের পদ সৃষ্টি করেছিলেন বিদায়ী মেয়র জন বিগস। শোনা যাচ্ছে, বাড়তি এই দুটি ডেপুটি মেয়রের পদ রাখতে আগ্রহী নন নতুন মেয়র। তবে আলোচনার মাধ্যমেই এর সমাধান খুঁজছেন তিনি। এদিকে, ডেপুটি মেয়র পদে নিয়োগ পাবার ক্ষেত্রে আলোচনায়?এগিয়ে আছেন মাইয়ুম মিয়া ও অহিদ আহমদ। তবে শেষ পর্যন্ত মাইয়ুম মিয়াই ডেপুটি মেয়র পদে নিয়োগ পাবেন বলে আভাস পাওয়া যাচ্ছে।
৯ সদস্যের কেবিনেটে কারা থাকছেন তা নিয়েও কমিউনিটিতে চলছে নানা বিশ্লেষণ। কেবিনেটে ঠাঁই পেতে এসপায়ার পার্টির কাউন্সিলারদের অনেকেই ইতিমধ্যে বেশ দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন। তবে কেবিনেট ঘোষণার আগ পর্যন্ত এ নিয়ে চূড়ান্ত কিছু বলা কঠিন। এবারই প্রথম পরিবেশবাদী গ্রীন পার্টি একটি আসন পেয়েছে। তিনি কেবিনেট না পেলেও পরিবেশ সংক্রান্ত কোন কমিটি বা টাস্কফোর্সের দায়িত্ব পেতে পারেন।
আবার মেয়রের উপদেষ্টা এবং মেয়র অফিসে কারা নিয়োগ পাচ্ছেন তা নিয়েও আছে ব্যাপক কৌতুহল। শোনা যাচ্ছে, এবার মূলধারার কাউকে মেয়রের রাজনৈতিক উপদেষ্টা নিয়োগ দেয়ার পরামর্শ দিয়েছেন মেয়রের কোনো কোনো শুভাকাঙক্ষী। যিনি মেয়র সম্পর্কে মূলধারার গণমাধ্যমে নেতিবাচক প্রচারণা মোকাবেলায় অধিক কার্যকর ভূমিকা রাখতে পারবেন। মেয়র অফিসের অন্যান্য কর্মকর্তা নিয়োগেও বৈচিত্র আনার চেষ্টা আছে বলে জানা গেছে। আগামী ২৫মে মে জানা যাবে লুতফুর রহমান এবার কাদের কাউন্সিল পরিচালনায় সম্মুখসারিতে রাখছেন।