Share |

পুলিশ জরিমানা করলে পদত্যাগ করবেন কিয়ার স্টারমার

পত্রিকা ডেস্ক
লণ্ডন, ১৬ মে: লেবার নেতা স্যার কিয়ার স্টারমার বলেছেন, লকডাউনের আইন ভঙ্গের কারণে পুলিশ তাঁকে জরিমানা করলে তিনি পদত্যাগ করবেন। দলের ডেপুটি লিডার এঞ্জেলা রেইনার বলেছেন, তিনিও পদত্যাগ করবেন, যদি তাঁকে পুলিশ জরিমানা করে।
‘বিয়ারগেইট’ কেলেঙ্কারি ফাঁস হওয়ার পর থেকেই চাপে আছেন লেবার নেতা। কিয়ার স্টারমার গত বছরের এপ্রিল মাসে হার্টলিপুলের উপ-নির্বাচনের প্রচারণায় গিয়ে এক পার্টিতে যোগ দেন বলে খবর ফাঁস করে ডেইলি মেইল। ওই পার্টিতে বিয়ার এবং কারির আয়োজন ছিলো। ওই সময়ে দেশব্যাপী করোনা বিধিনিষেধ বহাল ছিলো। ফলে ওই পার্টিতে যোগ দিয়ে লেবার নেতা করোনা বিধি লঙ্ঘন করেছেন বলে অভিযোগ। ডেইলি মেইল ওই পার্টির একটি ফুটেজও ফাঁস করে, এতে দেখা যাচ্ছে লেবার নেতা কিয়ার স্টারমার অন্যান্যদের সঙ্গে বিয়ার সেবন করছেন।
গত শুক্রবার ওই ভিডিও ফুটেজের ব্যাপারে তদন্ত করবে বলে জানায় ডারহাম পুলিস।
লেবার দলের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, দিনের কার্যসূচিতেই বিয়ার এবং টেইকওয়ে কারির কথা উল্লেখ ছিলো। লেবার নেতা বরাবরই বলে আসছেন, তিনি কোভিড আইন ভঙ্গ করেননি। গত সোমবার তিনি আরও একধাপ এগিয়ে এসে বললেন, পুলিশ তাঁকে জরিমানা করলে তিনি পদত্যাগ করবেন।
বরিস জনসনের বিপরীতে নিজের অবস্থানকে সংহত দেখাতে অনেকটা জুয়া খেলার ঝুঁকি নিলেন লেবার নেতা। ডাউনিং স্ট্রীটে লকডাঊন আইন ভঙ্গের অভিযোগ পুলিশ তদন্ত করতে শুরু করার সাথে সাথে কোনো বিলম্ব না করে পার্লামেন্টে দাঁড়িয়ে প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে পদত্যাগ করতে বলেছিলেন স্যার কিয়ার স্টারমার।
সোমবার ডাউনিং স্ট্রীটে ব্যবসায়ীদের সাথে এক অনুষ্ঠানে বেশ আনন্দে ছিলেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। লকডাউনের আইন ভঙ্গের দায়ে পদত্যাগের কোনো চিন্তা-ভাবনা তাঁর মধ্যে দেখা যায়নি। পুলিশ তাঁকে ইতোমধ্যে একটি জরিমানার নোটিশ পাঠিয়েছে। সেটি তিনি পরিশোধও করেছেন। পুলিশ এখনও আরও অভিযোগ তদন্ত করছে। এদিকে লেবার নেতার বিরুদ্ধে লকডাঊন আইন ভঙ্গের অভিযোগ তীব্র হলেও সরকারের মন্ত্রীরা তাঁকে ভণ্ড ডেকেই ক্ষান্ত হচ্ছেন, লেবার নেতাকে পদত্যাগ করতে বলছেন না।
নিজের ক্যারিয়ারকে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দিয়ে লেবার নেতা কিয়ার স্টারমার প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনের ওপর চাপ আরও বাড়িয়েছেন। ডারহাম পুলিশের হাতে এখন অনেক বড় একটি সিদ্ধান্ত।