আপনি কি জানেন, ডায়াবেটিস দৃষ্টিশক্তি হারানোর কারণ হতে পারে?

“আপনার যদি ডায়াবেটিস থেকে থাকে তাহলে আপনি ডায়াবেটিসের কারণে সৃষ্ট চোখের রোগ ‘ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি’তে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন।”

ডাঃ এভলিন মেনসাহ
ক্লিনিক্যাল প্রধান (লিড), অপথালমোলজি
লণ্ডন নর্থ ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি হেলথকেয়ার এনএইচএস ট্রাস্ট ।

ডায়াবেটিস থাকলে চোখের স্ক্রীনিং করানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ

“আমি দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছি বলে যখন ধরা পড়ল, তখন তা আমার মধ্যে প্রবল প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। কেউই তাঁর দৃষ্টিশক্তি হারাতে চায় না। আমি ছয় মাস কেঁদেছি।”

বার্নাডেট ওয়ারেন (৫৫)
সাবেক শিক্ষক, সারে ।

স্ক্রিনিং প্রাথমিক লক্ষণগুলি সনাক্ত করতে সাহায্য করে

“নিয়মিত পরীক্ষা-নীরিক্ষা এবং স্ক্রিনিংয়ে অংশ নিলে তা মানুষের শরীরে জটিলতা সৃষ্টির ঝুঁকি অথবা প্রাথমিক লক্ষণগুলি সনাক্ত করতে সাহায্য করবে। তখন এসব ব্যাপারে আমরা কিছু করতে সক্ষম হবো।

ডা. ভরন কুমার
জিপি, স্লাও, বার্কশায়ার

বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

কবিতা

বনলতা সেন আর নীরা লন্ডনে

জুন ৭, ২০২৩ ৭:০৮ অপরাহ্ণ | কবিতা

।। হামিদ মোহাম্মদ ।।

আজ ৭ মে লন্ডনে তুমুল রোদ, রৌদ্রকরোজ্জ্বল দিন
গতকাল ছিল ঝিরঝির বৃষ্টি রাজার অভিষেক, আজ নেই বৃষ্টি
এই দিনে লন্ডনে কিনুগোয়ালার গলিতে রবীন্ত্রনাথের বাঁশি কবিতার কানাকানি
জীবনানন্দের বনলতা সেন ঘুরে বেড়াচ্ছেন ট্রাফালগার স্কয়ার, হাইডপার্ক
অক্সফোর্ড স্ট্রিটের দোকানে দোকানে, পিকাডেলী সাকার্সের উন্মাতাল পরীর ডানায়।

সাথে আছেন সুনীলের নীরা
পাতাল রেলেও নাকি তাদের দেখা গেছে হই-হুল্লোড় মাতমাতি,কবিতাপাঠ করতে!
লাল লাল খোলা বাসে তারা ঘুরছেন লন্ডনের এ মাথা ওমাথা
কত না দৃশ্য–
পেছন থেকে কে যেন ডাক দিল, সেকি সুনীল! লুটোপটি শুরু হয় নীরার!
বনলতা আর নীরা এক সঙ্গে আঁচল উড়িয়ে লন্ডনের আকাশে ওড়াচ্ছেন ঘুড়ি
এসব দৃশ্য দেখে এসেছেন আমার প্রতিবেশী,
এখনো দৃশ্যমান বলে উচ্ছ্বসিত সহকর্মী
আমাকে টেনে নিয়ে এলেন বাইরে
লন্ডনে বনলতা সেন আর নীরা
নীরার শাড়ি
বনলতা সেনের জীবনানন্দ
মুখোমুখি বসিবার কাল এখানে নাকি উদাম!
এসব আমি দেখেছিলাম ঘুমের ভেতর। লিখছিলাম কবিতা।
হ্যা, ঘুম ভাঙার পর যতটুকু পারি মনে করে লিখলাম সেই কবিতাখানি।
অথচ, বন্ধুরা সাক্ষী দেয়
সাক্ষ্য দিচ্ছিলো শত শত লোক, শত শত তরুণ তরুণী
ঘটনা নাকি সত্যি ঘটেছিল এই লন্ডনে, দিনটি ৭ মে রোববার দু’হাজার তেইশ
আমি এতোসব কিচ্ছাকাহিনি শুনে সবান্ধব
বিমূঢ় চেয়ে আছি টেমসের জলে চোখ পাতি
তাকিয়ে আছি স্টার্টফোর্ডের ওয়েস্টফিল্ডের উঁচু শপিংমলের ঝিলমিল
সাইনবোর্ডে
উথালি-পাথালি এই আসে এই যায়
চোখ ধাঁধানো নানা পণ্যের ফিরিস্তি।
ঘুম থেকে উঠে নীরা আর বনলতা সেনকে পুনরায় খুঁজতে বেরোয়ই লন্ডনের
কিনুগোয়ালার গলির মোড়ে, ট্রাফালগার স্কোয়ার, পিকাডেলী ও পাতাল রেলে।
ঘুরি আর ফিরি—
এখনো ঘুমঘোর আমি প্রেমে-পড়া যুবক
স্বপ্ন কি এতোই বৈরাগী স্বভাবের, উত্তর খুঁজিতে বার বার বৈরাগী হই।

হায়—
নীরা আর বনলতা সেন লন্ডনে এলে আমাকে খালি
দোষে পায়।

আরও কবিতা

মৌমাছি

মৌমাছি

|| আহমেদ শীর্তাজ ||

আহা! মানুষ যদি মৌমাছি হতো
আর মৌমাছিরা হতো মানুষ,
এই ধরণী অনেক সুশৃঙ্খল হতো নিশ্চয়।
ওদের মধ্যে ক্ষমতার ভাগাভাগিটা দারুন,
একজন স্বাবলম্বী হলেই
নতুন দল গঠন করতে পারে খুব সহজেই।

>>> বাকি অংশ

এক গুচ্ছ কবিতা

এক গুচ্ছ কবিতা

|| মুহম্মদ ইমদাদ ||

প্রেমের কবিতা পারি না!
আমি গাই আগুন-লাগা নারী,
তারে জাপটে ধরি, বলি,
আমি গাঙে ভাসা ছেলে,
আমার সারা অঙ্গে পানি!
আমারে জড়াও তোমাতে
আর দহন করো দান,
বিনিময়ে আমি তোমার
ফেলা দেওয়া সন্তান!

>>> বাকি অংশ

একটি কৃষি কবিতা

একটি কৃষি কবিতা

|| মুজিব ইরম ||

ধানের মৌসুম আসে তোমাদের গাঁয়ে
গত জন্মে
ধান মাড়াইয়ে আমিও দিয়েছি ডাক
নীরবে পড়েছি ঝরে  তোমার উঠানে

ছিটিয়েছি জালা
হালিচারা লাগিয়েছি
কাদাজলে মেখেছি তফন
আমিও কেটেছি ঘাস আদরে

>>> বাকি অংশ

মৌমাছি

প্যাচালী ‘অনেক’

|| আহমেদ শীর্তাজ ||

আকাশে মেঘ অনেক
সাগরে ঢেউ অনেক
বাইরে বৃষ্টি অনেক
ঘরে আধার অনেক
মুখে হাসি অনেক
বুকে কষ্ট অনেক
পূর্ণীমায় জোছনা অনেক

>>> বাকি অংশ

তবুও তো ছিলাম

তবুও তো ছিলাম

|| শামীম আজাদ ||

দেখা হয়নি,
হতে পারেনি আমাদের তীব্র কিংবা হাল্কা
কোন আলিংগন
অথচ সে দূরত্ব লন্ডন- বাংলাদেশ নয়
এ শুধু গুলশান থেকে ধানমন্ডি যেতে হয়।

আমার যে এত সাংসারিক সংযোগ
পাঠক সমাবেশে ঘন ঘন পদ্যপাত
বিবাহ ও বিরিয়ানি

>>> বাকি অংশ

আরও পড়ুন »