আপনি কি জানেন, ডায়াবেটিস দৃষ্টিশক্তি হারানোর কারণ হতে পারে?

“আপনার যদি ডায়াবেটিস থেকে থাকে তাহলে আপনি ডায়াবেটিসের কারণে সৃষ্ট চোখের রোগ ‘ডায়াবেটিক রেটিনোপ্যাথি’তে আক্রান্ত হওয়ার ঝুঁকিতে আছেন।”

ডাঃ এভলিন মেনসাহ
ক্লিনিক্যাল প্রধান (লিড), অপথালমোলজি
লণ্ডন নর্থ ওয়েস্ট ইউনিভার্সিটি হেলথকেয়ার এনএইচএস ট্রাস্ট ।

ডায়াবেটিস থাকলে চোখের স্ক্রীনিং করানো খুবই গুরুত্বপূর্ণ

“আমি দৃষ্টিশক্তি হারিয়েছি বলে যখন ধরা পড়ল, তখন তা আমার মধ্যে প্রবল প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করে। কেউই তাঁর দৃষ্টিশক্তি হারাতে চায় না। আমি ছয় মাস কেঁদেছি।”

বার্নাডেট ওয়ারেন (৫৫)
সাবেক শিক্ষক, সারে ।

স্ক্রিনিং প্রাথমিক লক্ষণগুলি সনাক্ত করতে সাহায্য করে

“নিয়মিত পরীক্ষা-নীরিক্ষা এবং স্ক্রিনিংয়ে অংশ নিলে তা মানুষের শরীরে জটিলতা সৃষ্টির ঝুঁকি অথবা প্রাথমিক লক্ষণগুলি সনাক্ত করতে সাহায্য করবে। তখন এসব ব্যাপারে আমরা কিছু করতে সক্ষম হবো।

ডা. ভরন কুমার
জিপি, স্লাও, বার্কশায়ার

বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন ২০২৪

অন্যমত

ইরানের অগ্রযাত্রা একইভাবে অব্যাহত থাকবে

২২ মে ২০২৪ ১:০৭ পূর্বাহ্ণ | অন্যমত

গাজীউল হাসান খান

ইরান ও আজারবাইজান সীমান্তে নির্মিত একটি বাঁধ উদ্বোধন করে ফিরে আসার পথেই ঘটে ইতিহাসের সেই বিপর্যয়কর ঘটনা। এক দুর্গম পার্বত্য এলাকায় ইরানের প্রেসিডেন্ট ও তাঁর সফরসঙ্গীদের বহনকারী হেলিকপ্টারটি দুর্ঘটনাকবলিত হয়। মৃত্যু হয় ইরানের প্রেসিডেন্ট সাইয়েদ ইব্রাহিম রাইসি ও তাঁর সরকারের পররাষ্ট্রমন্ত্রী হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ানসহ ৯ জন উচ্চপদস্থ ইরানি ও আজারবাইজানি কর্মকর্তার। ইরানে পাঁচ দিনব্যাপী জাতীয় শোক কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়েছে।

প্রিয় নেতার মৃত্যুতে ইরানবাসী শোকে মুহ্যমান হলেও সবার মনে এখন একটাই প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে, আর সেটি হলো : প্রেসিডেন্ট ও পররাষ্ট্রমন্ত্রীসহ অন্যদের বহনকারী হেলিকপ্টারটি ভেঙে পড়ার বিষয়টি কি শুধুই একটি দুর্ঘটনা, নাকি এটি পরিকল্পিত কোনো নাশকতা? হেলিকপ্টার বহরের তিনটির মধ্যে দুটি হেলিকপ্টার নিরাপদে ফিরে এলেও প্রেসিডেন্ট রাইসিকে বহনকারী হেলিকপ্টারটি বিধ্বস্ত হয়। জ্বলে-পুড়ে ছাই হয়ে গিয়েছিল তাদের কেবিনটি। সে ঘটনা নিয়ে বিভিন্ন তথ্য সংগ্রহ কিংবা তদন্ত চালু থাকলেও এখনো কোনো সুনির্দিষ্ট তথ্য পাওয়া যায়নি। তাতে শুধু ইরান কিংবা মধ্যপ্রাচ্যেই নয়, বিশ্বজুড়েই শুরু হয়েছে নানাবিধ আলাপ-আলোচনা।তুরস্ক, রাশিয়া ও চীন সরকারও এই ঘটনার তদন্ত অব্যাহত রেখেছে। ইরানের গোয়েন্দা দপ্তরও গভীরভাবে বিষয়টি পর্যবেক্ষণ ও অভ্যন্তরীণ তদন্ত চালিয়ে যাচ্ছে। এ ঘটনার সঙ্গে ইসরায়েল কিংবা অন্য কোনো পক্ষের কোনোভাবে সম্পৃক্ততা রয়েছে কি না সেটি খুঁজে বের করা যেমন জরুরি, তেমন কিছু ঘটে থাকলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়াও ইরানের জন্য জরুরি। কারণ বিগত বছরগুলোতে ইসরায়েলের বিভিন্ন গুপ্তঘাতকরা ইরানের প্রচুর বৈজ্ঞানিক, সামাজিক উচ্চপদস্থ কর্মকর্তা এবং এমনকি সিরিয়া ও ইরাকে ইরানের কনস্যুলেট ও বিভিন্ন স্থাপনার ওপর হামলা চালিয়েছে এবং হত্যা করেছে জেনারেল কাশেম সুলেইমানি ও ইসলামী রেভল্যুশনারিগার্ড বাহিনীর ব্রিগেডিয়ার জেনারেল রেজা জাহেরিসহ অনেককে।

ইরানের সাবেক প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল্লাহিয়ানসহ উচ্চপদস্থ বিভিন্ন কর্মকর্তার মৃত্যুর কারণে শোক পালনের মধ্যেও ইরান সরকারের বিভিন্ন রাষ্ট্রীয় কর্মকাণ্ড কিংবা সাংবিধানিক বিষয়াদি থেমে নেই। এরই মধ্যে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আলী খামেনি প্রেসিডেন্ট রাইসি ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবদুল্লাহিয়ানের শূন্যপদে অন্তর্বর্তীকালীন প্রেসিডেন্ট হিসেবে প্রথম ভাইস প্রেসিডেন্ট মোহাম্মদ মোখবার ও পররাষ্ট্রমন্ত্রী পদে আলী বাখেরি কানিকে নিয়োগ দিয়েছেন। সংবিধান অনুযায়ী প্রেসিডেন্টের শূন্যপদে ৫০ দিনের মধ্যে নির্বাচন দেওয়ার বাধ্যবাধকতা থাকায় আগামী ২৮ জুন নির্বাচন অনুষ্ঠানের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে। প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টার বিপর্যয়ের পর ঘটনার আকস্মিকতায় ইরান হঠাৎ থমকে গেলেও দেশটি তার সার্বিক কর্মসূচি, জাতীয় নীতি ও ধারাবাহিকতা থেকে কোথাও একচুলও বিচ্যুৎ হয়নি। ইরান তার অনুসৃত নীতি ও কার্যক্রম শুধু ফিলিস্তিন ও মধ্যপ্রাচ্যেই নয়, রাশিয়া ও চীনসহ সর্বত্র একইভাবে চালিয়ে যাওয়ার প্রত্যয় ব্যক্ত করেছে। বর্তমান সরকার ১৯৭৭-৭৯ এ ইসলামিক বিপ্লব সংঘটিত হওয়ার পর থেকে তার অনুসৃত রাজনৈতিক, কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক নীতিতে অটল ও অবিচল রয়েছে। প্রায় পাঁচ দশক ধরে শত প্রতিকূল অবস্থা কিংবা মার্কিন নিষেধাজ্ঞার মধ্যেও একনিষ্ঠভাবে কাজ করে যাচ্ছে ইরান। 

একটা সময় অর্থনীতি, কূটনীতি ও সামরিক দিক থেকে ইরান খুবই বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল, তখনো ইরান সরকার ভেঙে পড়েনি। খাদ্য, স্বাস্থ্যসেবা, প্রয়োজনীয় ওষুধ উৎপাদন এবং বিভিন্ন গবেষণার মাধ্যমে ক্রমাগতভাবে এগিয়েছে। প্রতিরক্ষাব্যবস্থাকে জোরদার করার জন্য প্রাণপণ প্রচেষ্টা চালিয়ে গেছে। ইরান তার ক্ষেপণাস্ত্র ও ড্রোন প্রযুক্তির ক্ষেত্রে অসামান্য সাফল্য অর্জন করেছে। তারা আজ পরমাণু বোমা তৈরির প্রায় দ্বারপ্রান্তে পৌঁছে গেছে। শত বাধা-বিপত্তির মুখেও তার জ্বালানি সম্পদ বাজারজাত করার ক্ষেত্রে নতজানু নীতি অবলম্বন করেনি। ফলে দিনে দিনে ইরান রাশিয়া ও চীনের মতো বৃহৎ শক্তির সঙ্গে মৈত্রীর সম্পর্ক গড়ে তুলতে সক্ষম হয়েছে। বিশ্বে ক্ষমতার একাধিক ভরকেন্দ্র প্রতিষ্ঠা ও ডলারের বিকল্প মুদ্রাব্যবস্থা চালু করা এবং এমনকি বাজার ও যোগাযোগব্যবস্থায় পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রেও ইরানের প্রচেষ্টা ছিল অব্যাহত। সে কারণেই মধ্যপ্রাচ্যের বাজার, বাণিজ্য ও প্রতিরক্ষাব্যবস্থায় পরিবর্তন আনার ক্ষেত্রে ইরানের নীরব প্রচেষ্টা সবার নজর কেড়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যের রাজনীতি ও অর্থনীতি কিংবা বাণিজ্য ও প্রতিরক্ষাব্যবস্থায় রাশিয়া ও চীনকে অংশীদার হিসেবে সাদরে গ্রহণ করেছে ইরান। পাশাপাশি সহযোগিতা করে যাচ্ছে লেবাননের হিজবুল্লাহ গেরিলা বাহিনী, ফিলিস্তিনের গাজায় হামাস প্রতিরোধ যোদ্ধা এবং ইয়েমেনে হুতি-আনসারাল্লাহ বাহিনীকে। মূলত সে কারণেই মধ্যপ্রাচ্যে যুক্তরাষ্ট্রের সৃষ্ট সামরিক শক্তি ইসরায়েল এখনো ফিলিস্তিনকে সম্পূর্ণভাবে গ্রাস করতে পারেনি। এ ক্ষেত্রে সৌদি আরব, মিসর কিংবা জর্দান দোদুল্যমান নীতি নিলেও ইরান তা করেনি। ইরান তার স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ও নিজস্ব বৈশিষ্ট্য বজায় রেখে সামগ্রিকভাবে বিভিন্ন অপশক্তির বিরুদ্ধে বহুমুখী সংগ্রাম চালিয়ে যাচ্ছে। তুরস্ক থেকে শুরু করে সৌদি আরব, মিসর ও জর্দান যেখানে যুক্তরাষ্ট্রের উন্নত জঙ্গিবিমান, ক্ষেপণাস্ত্র ও পারমাণবিক প্রযুক্তি পেতে ফিলিস্তিনসহ মুসলিম বিশ্বের স্বার্থ জলাঞ্জলি দিয়ে তলে তলে ইসরায়েলের সঙ্গে বিভিন্ন গোপন কার্যক্রম চালিয়ে যাচ্ছে, সেখানে একমাত্র বর্তমান ইরান সরকারই ফিলিস্তিন, সিরিয়া, ইরান ও লেবাননসহ মধ্যপ্রাচ্যের স্বার্থ সংরক্ষণে ত্রাতার ভূমিকা অব্যাহত রেখেছে। গাজায় ইহুদিবাদীদের আগ্রাসনের বিরুদ্ধে একজোট হয়ে অস্ত্র ধরা কিংবা বিশ্বে সৌদি আরব, আমিরাত, কুয়েত ও মিসর তাদের জ্বালানি সম্পদ সরবরাহ বন্ধ করার হুমকিটাও দিতে পারছে না। ফলে গাজায় ইহুদিবাদীদের আগ্রাসন কিংবা গণহত্যা বন্ধ হচ্ছে না। 

আরব রাষ্ট্রসমূহ কিংবা মধ্যপ্রাচ্যের দেশসমূহের এমন একটি সম্মিলিত উদ্যোগের অভাবে ফিলিস্তিনে যখন গণহত্যা অব্যাহত রয়েছে এবং গাজাবাসী নিশ্চিহ্ন হচ্ছে, ঠিক তখনই ঘটল ইরানের প্রেসিডেন্ট রাইসির হেলিকপ্টার বিপর্যয়। কিন্তু তাতেও হতোদ্যম হয়নি ইরান। আবার নতুন উদ্যোগে, নেতৃত্ব প্রতিষ্ঠার নতুন প্রত্যয়ে এবং মধ্যপ্রাচ্যে সব সম্ভাবনার দ্বার উন্মুক্ত করতে দৃপ্ত পদভারে এগিয়ে যাওয়ার শপথ ব্যক্ত করেছে ইরান। এক ইব্রাহিম রাইসি ও এক হোসেইন আমির আবদুল্লাহিয়ানের পরিবর্তে ইরান, ফিলিস্তিন কিংবা আরব ভূমিতে জন্ম হবে শত শত আপসহীন ও মৃত্যুঞ্জয়ী যোদ্ধার। ইরান সে শপথ নিয়েই এগিয়ে যাবে, কোনো অবস্থায়ই পিছু হটবে না। 

ঢাকা, ২২ মে ২০২৪
লেখক: বাংলাদেশ সংবাদ সংস্থার (বাসস) সাবেক প্রধান সম্পাদক ও ব্যবস্থাপনা পরিচালক

আরও পড়ুন

ফিলিস্তিন : বিশ্ব ইতিহাসের এক অমানবিক অধ্যায়

ফিলিস্তিন : বিশ্ব ইতিহাসের এক অমানবিক অধ্যায়

গাজীউল হাসান খান ♦ প্রথম বিশ্বযুদ্ধের পর (১৯১৪-১৯১৮) মিত্রশক্তির কাছে জার্মানির সাথে সাথে উসমানীয় শাসনের পরাজয় ঘটলে আরব বিশ্বে অভ্যুদয় ঘটে কিছু নতুন রাষ্ট্রের। বিজয়ী শক্তি ব্রিটেন (যুক্তরাজ্য) ও ফ্রান্সের নিয়ন্ত্রণাধীন উসমানীয় সাম্রাজ্যের ভূখণ্ডের মধ্যে তখন...

১৮৯৪-এর এক স্কুলঘরে

১৮৯৪-এর এক স্কুলঘরে

লন্ডনের চিঠি সাগর রহমান ♦ঘরটাতে পা দিয়েই মনে হলো, পাড়ি জমিয়েছি দূর অতীতে। এ ঘরের প্রতিটি আসবাবপত্র: ছাত্র-ছাত্রীদের বসার বেঞ্চ, শিক্ষকের টেবিল, টেবিলের পেছনে দাঁড়ানো দুটো বড় কাঠের আলমিরা, প্রমাণ সাইজের দুটো লেখার বোর্ড, পেছনের দেয়ালে রাণী ভিক্টোরিয়ার সাদা-কালো...

ভোটে “ভেটো”

ভোটে “ভেটো”

লণ্ডনের চিঠি সাগর রহমান ♦ গত ২মে রাত সাড়ে দশটার সময় আমার মনে পড়লো, আমি লণ্ডনের মেয়র নির্বাচনে ভোট দিতে ভুলে গেছি। নিজের এই অনাগরিকসুলভ কাজে আমি নিজের উপর অত্যন্ত বিরক্ত হয়েছি। বিরক্ত হয়ে উদোর পিণ্ডি বুদোর ঘাড়ে চাপানোর চেষ্টা করতে লাগলাম মনে মনে। আজ সারাদিন খুব...

জুরি-কর্তব্যে এক সপ্তাহ

লন্ডনের চিঠি সাগর রহমান ♦ গত বছর হঠাৎ সাউথওয়ার্ক ক্রাউন কোর্ট থেকে বাসায় চিঠি এলো। খামের উপরে কোর্টের সিল মারা দেখে বেশ উদ্বিগ্ন হয়ে ভাবতে শুরু করলাম- নিজের জ্ঞাতে কিংবা অজ্ঞাতে কোনো অপকর্ম করেছি কি-না! চিঠি খুলতেই অবশ্য উদ্বেগ দূর হয়ে গেলো। জানতে পেলাম, আগামী অমুক...

দুর্নীতি ও কর্তৃত্ববাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রজন্ম

দুর্নীতি ও কর্তৃত্ববাদের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের নতুন প্রজন্ম

গাজীউল হাসান খান ♦ কথিত আছে, বিশ্বের সবচেয়ে বড় চাঁদাবাজি হতে দেখা যায় যুক্তরাষ্ট্রের নির্বাচনের সময়। ডেমোক্রেটিক এবং রিপাবলিকানদের মতো দুটি প্রধান দলের সম্মিলিত নির্বাচনী খরচ তিন বিলিয়ন ডলারের অনেক বেশি বলে ধরে নেওয়া হয়। চার বছর অন্তর অন্তর নভেম্বরের প্রথম...

আরও পড়ুন »

 

রেইনবো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সফল সমাপনী

রেইনবো আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসবের সফল সমাপনী

শ্রেষ্ঠ চলচ্চিত্র ‘ফাতিমা’,  শ্রেষ্ঠ অভিনেত্রী তাসনিয়া ফারিণ,  শ্রেষ্ঠ পরিচালক অতনু ঘোষ,  শ্রেষ্ঠ গল্প ‘মুনতাসির’  নিলুফা ইয়াসমীন হাসান ♦ লণ্ডন, ১০ জুলাই: সার্বিকভাবে সফল এবং দর্শকদের প্রশংসায় ভাসছে এবারকার রেইনবোর ২৫তম আন্তর্জাতিক চলচ্চিত্র উৎসব। উৎসবের সমাপনী...

শিক্ষার্থীদের মতপ্রকাশের স্বাধীনতার প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানালো ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন

শিক্ষার্থীদের মতপ্রকাশের স্বাধীনতার প্রতি সম্মান প্রদর্শনের আহ্বান জানালো ইন্টারন্যাশনাল স্টুডেন্টস ইউনিয়ন

লণ্ডন, ১০ জুন: অক্সফোর্ড বিশ্ববিদ্যালয়ে শান্তিপূর্ণ আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের পুলিশের ধরপাকড়, কলাম্বিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ে শান্তিপূর্ণ বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীদের বরখাস্ত ও কিরগিজস্তানে বিদেশি শিক্ষার্থীদের ওপর হামলার ঘটনাকে কেন্দ্র করে ক্যাম্পাসে শিক্ষার্থীদের...

‘আসুন, ফিলিস্তিনীদের জন্য ‘ঈদ মোবারক’ পাঠাই

আসছে ১৬ জুন রোববার ব্রিটেনের মুসলমানরা পালন করবেন এবারের পবিত্র ঈদুল আজহা। আর এক দিনের ব্যবধানে বাংলাদেশসহ সারা বিশ্বের মুসলমানরা উদযাপন করবেন মহান এ দিনটি। ইসলামের অনুসারীদের জন্য বছরের সবচেয়ে তাৎপর্যপূর্ণ দিনগুলোর একটি হচ্ছে এই ঈদুল আজহা। একে কোরবানীর ঈদ নামেও...

বর্ণিল আয়োজনে সম্পন্ন হলো ‘লণ্ডন বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার’

বর্ণিল আয়োজনে সম্পন্ন হলো ‘লণ্ডন বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার’

লণ্ডন, ১০ জুন: দেশীয় সংস্কৃতির উপস্থাপনের বর্ণিল আয়োজনে নজর কাড়া ফ্যাশন শো আর হাজারো দর্শনার্থীদের উপস্থিতিতে সম্পন্ন হয়েছে সপ্তম লণ্ডন বেঙ্গলী ওয়েডিং ফেয়ার। ঘড়ির কাঁটায় তখন বিকেল ৪টা ছুই ছুই, উপর থেকে কেক নামলো। আমন্ত্রিত অতিথিবৃন্দ কেক কেটে মেলার উদ্বোধন...